লোকাল ট্রেন চালু নিয়ে তুঙ্গে জল্পনা, সোমবার নবান্নে তৈরি হতে চলেছে নির্ঘন্ট

369
Advertisement

ওয়েব ডেস্ক : কবে ফের সচল হবে লোকাল ট্রেন পরিষেবা, এই নিয়ে ইতিমধ্যেই সাধারণ মানুষের মধ্যে জল্পনা তুঙ্গে। দীর্ঘ কয়েকমাস রেল পরিষেবা বন্ধের পর কলকাতা ও শহরতলির লোকাল ট্রেন চালু নিয়ে অবশেষে সোমবার নবান্নে রেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছেন রাজ্য সরকারের আধিকারিকরা। জানা গিয়েছে, শনিবার হাওড়া স্টেশনে যাত্রী বিক্ষোভের পর নড়েচড়ে বসেছে রাজ্য সরকার। সেকারণেই এবার রাজ্যের তরফে লোকাল ট্রেন চালানোর ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। সে অনুযায়ী শনিবার রাতেই রাজ্যের তরফে রেলকে চিঠি দিতেই বৈঠকে বসতে রাজি হয়েছেন পূর্ব রেলের আধিকারিকরা। জানা গিয়েছে, সোমবার বিকেল ৫টায় নবান্নে রাজ্য সরকারের আধিকারিক ও রেল কর্তৃপক্ষের সাথে এই বৈঠক হবে।

Advertisement

জানা গিয়েছে, সোমবারের বৈঠকে রাজ্যের তরফে হাজির থাকবেন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। স্বরাষ্ট্রসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী ও অন্যান্য আধিকারিকরা। পাশাপাশি রেলের তরফে হাজির থাকবেন পূর্ব রেলের অতিরিক্ত জেনারেল ম্যানেজার, অতিরিক্ত অপারেশন ম্যানেজার ও চিফ সিকিওরিটি কমিশনার। এদিকে শুধুমাত্র সাধারণ যাত্রীরাই নয়, একইসাথে লোকাল ট্রেন পরিষেবা সচল করার দাবিতে এবার সোচ্চার হয়েছে গেরুয়া শিবির সহ রাজ্যের অন্যান্য বিরোধী দলগুলি।

Advertisement
Advertisement

এদিন লোকাল ট্রেন চালানো নিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করে বলেন, “বাস, মেট্রো, ট্রাম, অটো, টোটো চললে সংক্রমণ ছড়াবে না। আর ট্রেন চললেই ছড়াবে? কেন্দ্রীয় সরকার লোকাল ট্রেন চালাতে চেয়ে বারবার চিঠি দিয়েছে তখন ওদের কানে জল ঢোকেনি। মানুষ যখন ট্রেন চালানোর দাবিতে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। পুলিশকে লাঠি চালাতে হচ্ছে তখন ওদের ট্রেন চালানোর কথা মনে পড়েছে।” তবে দিলীপ ঘোষের মন্তব্যে চুপ থাকেনি তৃণমূল। এদিন দিলীপবাবুর মন্তব্যের জবাবে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন, “লোকাল ট্রেন চললে রাজ্য সরকার হঠাৎ সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা করছে। তাই সাবধানী পদক্ষেপ করতে চাইছে তারা। কাল স্বরাষ্ট্রসচিব রেলের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন। ওরা ঠিক করুন কী ভাবে নিরাপদে ট্রেন চালানো যায়।”