ফের করোনার থাবা রাজনৈতিক মহলে,মারণ ভাইরাসের বলি বিধাননগরের তৃণমূল কাউন্সিলর সুভাষ বসু

368

ওয়েব ডেস্ক : করোনা আবহে চিকিৎসক স্বাস্থ্যকর্মীদের পাশাপাশি ইদানিং প্রায় প্রতিদিনই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। আরও একবার করোনার থাবা রাজনৈতিক মহলে। মারণ ভাইরাসের বলি হলেন বিধাননগরের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর সুভাষ বসু। করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের পর থেকেই একেবারে প্রথম সারিতে দাঁড়িয়ে লড়াই করছিলেন তিনি। নিম্নবিত্ত মানুষদের পাশে দাঁড়িয়ে প্রাণপণ লড়ছিলেন শাসকদলের এই কাউন্সিলর। আচমকা তাঁর মৃত্যুতে স্বাভাবিকভাবেই শোকস্তব্ধ গোটা এলাকা।

আরও পড়ুন -  শুভ জন্মদিন খড়গপুর টাউন থানার নতুন ভবনের, নস্টালজিয়ার ব্রিটিশ কলোনি

জানা গিয়েছে, গত কয়েকদিন যাবৎ সামান্য শারীরিক অসুস্থতা অনুভব করেছিলেন কাউন্সিলর সুভাষ বসু। এরপর গত ২৪ জুলাই আচমকা অসুস্থ হয়ে পড়েন বিধাননগরের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সুভাষ বসু। তাঁর শরীরে জ্বর, শ্বাসকষ্ট-সহ একাধিক করোনা উপসর্গ লক্ষ্য করা যায়৷ এরপর দ্রুত তাকে স্থানীয় এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ তারপরই করোনা পরীক্ষা করা হয়। রিপোর্ট আসতেই চিকিৎসকরা নিশ্চিত করেন যে কাউন্সিলর করোনা আক্রান্ত। সেই অনুযায়ী চিকিৎসকরা শাসকদলের ওই কাউন্সিলরের চিকিৎসাও শুরু করেন। তবে তা সত্ত্বেও শেষরক্ষা করা গেল না। বুধবার সকালে বেসরকারি হাসপাতালেই মৃত্যু হল সুভাষ বসুর।

প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণ রুখতে দীর্ঘ কয়েকমাস জারি করা হয়েছিল লকডাউন। সেই সময় করোনা সংক্রমণের আশঙ্কাকে দূরে সরিয়ে নিম্নবিত্ত মানুষদের পাশে দাঁড়াতে বহু মানুষের খাওয়ার ব্যবস্থা করেছিলেন ওই তৃণমূল কাউন্সিলর। কখনও রাস্তায় নেমে মানুষের মধ্যে করোনা সচেতনতা বৃদ্ধি করতে মাস্ক, স্যানিটাইজার বিলি করতে দেখা গিয়েছে বিধাননগরের তৃণমূল কাউন্সিলর সুভাষ বসুকে। এমন জনদরদী নেতার মৃত্যুতে স্বাভাবিকভাবেই শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ফের করোনার থাবা রাজনৈতিক মহলে,মারণ ভাইরাসের বলি বিধাননগরের তৃণমূল কাউন্সিলর সুভাষ বসু 1