হেঁসেলিয়ানা: সুজির সর ভাজা আর বোঁদে

1392
হেঁসেলিয়ানা: সুজির সর ভাজা আর বোঁদে 1

আজকের রান্নায়: সুজির সর ভাজা আর বোঁদে
অদিতি বর্মন

কথায় বলে necessity is the mother of invention বা প্রয়োজনই উদ্ভাবনের উৎস। এই লক ডাউনে সেই কথাটি আরও ভাল করে উপলব্ধি করলাম। এমনিতে যা হোক রান্না-বান্না করে চলে যাচ্ছিল কিন্তু প্রথম পর্বের লকডাউনটা কাটার মুখে সমস্যায় পড়লাম। প্রথমে ভেবেছিলাম ২১টা দিন যেমন তেমন কাটিয়ে দেওয়া যাবে কিন্তু যেই ফের ১৯দিনের মানে ২য় দফার লকডাউন শুরু হল তখন বাড়ির ছোটরা এমন কি বড়রাও ছটপট করতে শুরু করল মিষ্টি চাই মিষ্টি চাই বলে। আর ওদের দোষ কী বলুন, বাঙালির মিষ্টি ছাড়া চলে? এদিকে তখন সংক্রমন সবে শুরু, শুনেছি দু’একটা মিষ্টি দোকান খুলছে। কিন্তু আমি কাউকে বাইরে দিতে নারাজ। এরপর কী করা যায় ভাবতে ভাবতে হঠাৎই বলতে পারেন গুপ্তধন পেয়ে গেলাম। ছোট বেলায় ঠাকুমা, দিদিমার বাড়িতে বানানো মিষ্টিগুলোর কথা মনে পড়ে গেল। সেই ছোট বেলায় তাঁদের কাছে বসে থাকতাম মিষ্টি খাওয়ার লোভে আর বসে থাকতে থাকতেই মনের মধ্যে গাঁথা হয়ে গিয়েছিল মিষ্টি বানানোর উপকরন পদ্ধতিগুলো। আজ প্রয়োজনে সেগুলোই বেরিয়ে এলো মনের অতল থেকে। তার সঙ্গে আমি একটু নতুন কিছু যোগ করে বানিয়ে ফেললাম এই মিষ্টি দুটো। আর বিশ্বাস করুন সেই মিষ্টি যখন পরিবারের পাতে তুলে দিলাম কী আনন্দ আর স্বস্তি! না শুধু নিজের হাতে বানানোই নয়, তাঁদের কতটা নিরাপত্তা দিলাম বলুন? এই করোনার সময়ে বাজারে গিয়ে মিষ্টি কেনা! না, চলুন রেসিপি আর পদ্ধতিটা বলে ফেলি।হেঁসেলিয়ানা: সুজির সর ভাজা আর বোঁদে 2

হেঁসেলিয়ানা: সুজির সর ভাজা আর বোঁদে 3

সুজির সর ভাজার জন্য আমাদের উপকরন লাগছে –

হেঁসেলিয়ানা: সুজির সর ভাজা আর বোঁদে 4
# উপকরণ পরিমান
1 সুজি ১ কাপ
2 এলাচ ২টি
3 দুধ ১/২ লিটার
4 বেকিং পাউডার পরিমাণ মত
5 ঘি , চিনি পরিমাণ মত
6 পাতি লেবু ১ টি

 

প্রণালী – এককাপ সুজি দুটি এলাচ দিয়ে মিক্সিতে গুঁড়ো করে নিতে হবে।আর একটি পাত্রে ওই দুধটা ফুটতে দিতে হবে।একটু ফুটতে শুরু করলেই তাতে ধীরে ধীরে সুজিটা দিয়ে নাড়তে হবে। নাড়তে নাড়তে যখন একদম টাইট হয়ে যাবে গ্যাস অফ করে ঠাণ্ডা করুন। ঠাণ্ডা হলে হাফ ছোটো চা চামচ বেকিং পাউডার আর এক চামচ ঘি দিয়ে আটা মাখার মতো ভালো করে মাখতে হবে।তারপর একটা থালায় বিছিয়ে ছুরি দিয়ে চৌকো করে কেটে সাদা তেলে বা ঘি তে আপনার পছন্দ মত ভেজে তুলে নিন, হালকা লাল রঙ আসবে। আরেকটি পাত্রে দুকাপ চিনি,এলাচ গুঁড়ো,দেড় কাপ জলে ফুটতে দিন। যখন হালকা ঘন হয়ে যাবে রস তখন এক চামচ লেবুর রস দিয়ে গ্যাস অফ করে দিন।উষ্ণ গরম অবস্থায় সুজির বড়া গুলো ফেলে ঢেকে রাখুন।ঠাণ্ডা হলেই তৈরি সুজির সর ভাজা।হেঁসেলিয়ানা: সুজির সর ভাজা আর বোঁদে 5

এবার বোঁদে, খুব সহজ মিষ্টি খুব সামান্য উপকরণে উপকরণ: বেসন,চিনি, খাওয়ার সোডা ঘি বা সাদা তেল,এলাচ                                                          প্রণালি:এক কাপ বেসন কে ভালো করে ফেটিয়ে নিয়ে জল দিয়ে এক চিমটি খাওয়ার সোডা ও এক চামচ ঘি মিশিয়ে আবার ফেটিয়ে দু ঘন্টা রেখে দিতে হবে।চাইলে ইয়োলো বা রেড ফুড কালার ইউজ করা যেতে পারে।আর একটি পাত্রে দেড় কাপ জলে এককাপ চিনি এলাচ দিয়ে ফুটিয়ে সিরা বানিয়ে রেখে দিতে হবে।
সাদা তেল বা ঘি তে ধীরে ধীরে বেসন গোলা টা ঝাজরি হাতার ওপর দিয়ে আস্তে আস্তে ফেলতে হবে, খেয়াল রাখতে হবে গোলা যেনো খুব পাতলা বা ঘন না হয়।ভাজা হলে উষ্ণ সিরা তে মিশিয়ে একঘন্টা রাখলেই তৈরি বোঁদে।

এবার একটা ছোট্ট টিপস দিয়ে দেই। এই দুটি মিষ্টির ক্ষেত্রেই কিন্তু আপনি পরিবারের যে সদস্যদের মিষ্টি একেবারেই চলেনা বা কম মিষ্টি চলে তাঁদের প্রয়োজনটাও মেটাতে পারেন। ওই পরিমান মিষ্টিটা আপনি রসে বা সিরায় ফেলেই তুলে নিন, বাকিটা যতটা মিষ্টি চান ততটাই রসে থাকতে দিন।

Previous articleহু হু করে বাড়ছে সংক্রমন, ১০দিনে কলকাতায় কন্টেনমেন্ট জোনের সংখ্যা তিনগুন, করোনা নিয়ন্ত্রন নিয়েই প্রশ্ন
Next articleঘরে বসে বিনামূল্যে ইঞ্জিনিয়ারিং ও প্রযুক্তির কোর্সের সুযোগ দিচ্ছে খড়গপুর আইআইটি