করোনা সংকটের মাঝেই আছড়ে পড়তে চলেছে ‘তাউকত’, মরশুমের প্রথম ঘূর্ণিঝড়ে জারি হল সতর্কতা

93
Advertisement

নিউজ ডেস্ক: করোনার সংকটের মাঝেই একটি ঘূর্ণিঝড়ের মুখোমুখি হতে চলেছে ভারত, ভারতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তরের সর্বশেষ আপডেটে অনুযায়ী,আরব সাগরে একটি চাপ সৃষ্টি হচ্ছে যা ১৬ ই মে ‘ ঘূর্ণিঝড়’-এর রূপ নিতে পারে। এটি ২০২১ সালের প্রথম ঘূর্ণিঝড় ঝড়, মায়ানমার এর নাম দিয়েছে ‘তাউকত’ , যার অর্থ ‘গরম জলবায়ুতে পাওয়া টিকটিকি ‘ । এই ঝড়টি কতটা ভয়াবহ হবে সে সম্পর্কে কোনও বুলেটিন প্রকাশ করা হয়নি, তবে এই ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ১৬ মে থেকে লক্ষদ্বীপ, কেরল, কর্ণাটক এবং তামিলনাড়ুতে ভারী বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, যা বেশ কয়েক দিন কার্যকর থাকবে।

Advertisement

মঙ্গলবার আইএমডি কর্তৃক জারি করা একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে যে ১৪ ই মে সকালে দক্ষিণ-পূর্ব আরব সাগরের উপর দিয়ে একটি নিম্নচাপের অঞ্চল বিকাশ হবে যা ১৬ ই মে একটি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ঝড়কে উত্তর-পশ্চিমের দিকে নিয়ে যাবে। ।সুতরাং লক্ষদ্বীপ, কেরল, কর্ণাটক ও তামিলনাড়ু উপকূলীয় অঞ্চল থেকে জেলেদের সমুদ্রে যেতে বাধা দেওয়া হয়েছে, তাদের বলা হয়েছে ১৪-১৬ মে এর মধ্যে সমুদ্রের দিকে না যেতে ।

Advertisement
Advertisement

জানা গিয়েছে, ১৬ মে ‘র পর তাউকতের গতিপথ পরিবর্তন হবে এবং এটি দক্ষিণ পাকিস্তানে প্রবেশ করতে পারে। আর এটাই যদি হয় তাহলে ১৭ ও ১৮ মে গুজরাটের উপকূলীয় অঞ্চলে এই ঘূর্ণিঝড়ের ব্যাপক প্রভাব পড়বে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের আগাম সতর্কতা মূলক ব্যবস্থা হিসেবে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানী একটি বৈঠক ডেকেছেন। রাজ্যের উপকূলীয় জেলাগুলির আধিকারিকদের সতর্ক থাকতে এবং প্রয়োজনীয় সুরক্ষা ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন।

এই বিষয়ে হাওয়া অফিস আরও জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড় তাউকত সৌরাষ্ট্র এবং দক্ষিণ গুজরাট অঞ্চল সহ রাজ্যের উপকূলীয় অঞ্চলে বজ্রবৃষ্টি সহ ঝড় বয়ে আনবে।