দেশের করোনা পরিস্থিতি খারাপ থেকে খারাপের দিকে যাচ্ছে, সতর্ক করলেন নীতি আয়োগ সদস্য ভিকে পাল

324
দেশের করোনা পরিস্থিতি খারাপ থেকে খারাপের দিকে যাচ্ছে, সতর্ক করলেন নীতি আয়োগ সদস্য ভিকে পাল 1

নিউজ ডেস্ক: একদিনে আক্রান্ত ৫৩ হাজারের বেশি, মোট মৃত ১.৬২ লক্ষ!করোনার সেকেন্ড ওয়েভ বিপজ্জনক হয়ে উঠছে; আশঙ্কাই যেন সত্যি হচ্ছে। রাজ্যে-রাজ্যে হু-হু করে ছড়াচ্ছে সংক্রমণ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ জানিয়েছেন, দেশের মধ্যে সর্বাধিক করোনা সংক্রমিত জেলাগুলির মধ্যে আটটিই মহারাষ্ট্রের। দিল্লিকেও তালিকায় রাখা হয়েছে।

কেন্দ্রের স্বাস্থ্য সচিবের সম্প্রতি জানিয়েছেন, ‘‘একাংশের জনগণের হেলদোলহীন আচরণ ও কোভিড প্রোটোকেলকে শিকেয় তোলে ঘুরে বেড়ানোর জেরেই সংক্রমণ বেড়ে চলেছে।’ নীতি আয়োগ সদস্য ভিকে পাল জানিয়েছেন, ‘‘দেশের করোনা পরিস্থিতি খারাপ থেকে খারাপের দিকে যাচ্ছে। গত কয়েক সপ্তাহে, বিশেষত কয়েকটি রাজ্যে করোনার সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত ভয়ঙ্করভাবে উদ্বেগ বাড়িয়েছে। কোনও রাজ্য, দেশের কোনও অংশই যেন এখনই আত্মতুষ্টিতে না ভোগে।“

দেশের করোনা পরিস্থিতি খারাপ থেকে খারাপের দিকে যাচ্ছে, সতর্ক করলেন নীতি আয়োগ সদস্য ভিকে পাল 2

সংক্রমনের নিরিখে গত শেষ ২৪ ঘন্টায় বাড়ল মৃতের সংখ্যা। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী,নতুন করে করোনা আক্রান্ত হলেন ৫৩ হাজার ৪৮০ জন। একই সঙ্গে এই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩৮০ জনের। যা কিনা গত দিনের তুলনায় বেশি। আক্রান্তের সংখ্যা অবশ্য কম। নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর জেরে মোট সংখ্যাও বাড়ল।

বুধবারে সকালে আসা রিপোর্ট অনুযায়ী, দেশজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ২১ লক্ষ ৪৯ হাজার ৩৩৫ জন। এর মধ্যে অবশ্য সুস্থ হয়ে উঠেছে ১ কোটি ১৪ লক্ষ ৩৪ হাজার ৩০১ জন। দেশে অ্যাক্টিভ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লক্ষ ৫২ হাজার ৫৬৬ জন। করোনার জেরে এখন অবধি দেশে মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ৬২ হাজার ৪৬৮ জনের।

কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। বিশেষ করে কয়েকটি রাজ্যের সংক্রমণ পরিস্থিতি উদ্বেগ বহু গুণে বাড়িয়েছে। পরিস্থিতি খারাপ থেকে আরও খারাপ হচ্ছে। গোটা দেশ করোনা হানায় ভয়ঙ্কর এক বিপদের মুখে দাঁড়িয়ে আছে।

এদিকে রাজ্যেও ক্রমশই চিন্তা বাড়াচ্ছে করোনা পরিস্থিতি। করোনা আক্রান্ত হয়ে আরও দু’জন মারা গেছে বলে স্বাস্থ্য দপ্তর একটি বুলেটিনে জানানো হয়েছে। দুজনের মৃত্যুর পর মৃতের সংখ্যা ১০,৩২৭ জনে দাঁড়িয়েছে। রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে নতুন করে ৬২৮ টি নতুন সংক্রমণের খবর পাওয়া গেছে। মৃত দুই ব্যক্তি যথাক্রমে কলকাতা ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার বাসিন্দা বলেও জানা গেছে। বুলেটিনে বলা হয়েছে, ৬২৮ জনের নতুন সংক্রমণের মধ্যে কলকাতা থেকে ২৬৫ জন এবং উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা থেকে ১৪৫ জন আক্রান্ত হয়েছে ।