রামদেবের বিরুদ্ধে অতিমারী আইনে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন চিকিৎসকদের সংগঠন

105
Advertisement

নিউজ ডেস্ক: ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ) যোগগুরু রামদেবের বিরুদ্ধে অতিমারী আইন বা এপিডেমিক ডিজিসেস অ্যাক্ট অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের কাছে দাবী জানাল। শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধনের কাছে চিঠি পাঠিয়ে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন যোগগুরু রামদেব অ্যালোপেথিক ওষুধ সম্পর্কে ও বিরুদ্ধে যে মন্তব্য করেছেন তার জন্য তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দাবী করেছে।

Advertisement

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে যে, রামদেব অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের বিরুদ্ধে কথা বলছেন। ঐ বিজ্ঞাপনে রামদেবকে বলতে শোনা যায়, ‘অ্যালোপ্যাথি ওষুধ খেয়ে লক্ষাধিক মানুষের মৃত্যু হয়।’ এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে চিকিৎসকদের সংগঠন দাবী করে, রামদেব এই মন্তব্যের মাধ্যমে ডিজিসিআই-এর গ্রহণযোগ্যতাকে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছে।

Advertisement
Advertisement

পাশাপাশি এদিন সংগঠনের তরফে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হর্ষ বর্ধনকে আরও জানানো হয়, যদি সরকারি স্তরে কোনও পদক্ষেপ না নেওয়া হয়, তাহলে গণতান্ত্রিক উপায়ে রামদেবের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবে চিকিৎসকদের এই সংগঠন।

আইএমএ-র দাবী, মহামারী আইনের ৩ নম্বর ধারা এবং ভারতীয় দণ্ডবিধি প্রয়োগ করে মামলা করা হোক রামদেবের বিরুদ্ধে। আইএমএ-র অভিযোগ, ফ্যাভিপিরাভির ওষুধ নিয়ে রামদেবের করা মন্তব্য হাস্যকর, শিশুসুলভ এবং বিজ্ঞান সম্পর্কে তাঁর অজ্ঞানতা প্রকাশ করে এবং রামদেবের দাবিগুলো সরাসরি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর (যিনি নিজে একজন অ্যালোপ্যাথি চিকিৎসক) উপর প্রশ্ন চিহ্ন লাগিয়ে দেয়।

শুধু তাই নয়, চিকিৎসকদের সংগঠনের তরফে দাবী করা হয়, রামদেব নিজের সংস্থার বিভিন্ন পণ্যের বিষয়ে মিথ্যা প্রচার চালিয়ে মানুষজনকে বিভ্রান্ত করেন।