ভাড়া বৃদ্ধি সহ একাধিক দাবিতে রাজ্যপালের দ্বারস্থ হলেন জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেট

172

ওয়েব ডেস্ক : ভাড়া বৃদ্ধির নিয়ে গত কয়েকমাসে বেসরকারি বাস মালিকদের সাথে রাজ্য সরকারের নানা মত বিরোধ তৈরি হয়েছে। বেসরকারি বাস মালিকদের তরফে রাজ্য সরকারকে ভাড়া বাড়ানো নিয়ে আলোচনার কথা বলা হলেও, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন কোনোভাবেই এই মূহুর্তে বাসের ভাড়া বাড়ানো সম্ভব নয়। এর জেরে এক পর্যায়ে রাস্তায় বাস না নামানোর সিদ্ধান্তও নেয় জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেট। রাজ্য সরকারের কাছে দাবি না মেটায় ডিজেলের দাম কমানো, ইন্স্যুরেন্সের প্রিমিয়াম মকুব, ইএমএই ছাড়-সহ একগুচ্ছ দাবিতে এবার রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের দ্বারস্থ হলেন বেসরকারি বাস মালিক সংগঠন। মঙ্গলবার জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেটের তরফে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের কাছে একটি স্মারকলিপি জমা দিলেন বেসরকারি বাস সংগঠন৷ তবে শুধুমাত্র রাজ্যপাল নয় এধরণের একাধিক দাবি নিয়ে এই চিঠি প্রধানমন্ত্রীর দফতরেও পাঠানো হয়েছে বলেই জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন -  সীমাহীন বর্বরতা দেখল বাংলা, শিক্ষিকার হাত পা বেঁধে হেঁচড়াতে হেঁচড়াতে নিয়ে চললেন তৃনমূল নেতা কর্মীরা

এদিন বাস মালিক সংগঠনের তরফে জানানো হয়, “রাজ্যের কাছে একাধিকবার আবেদন করেও ভাড়া বৃদ্ধি হয়নি। রাজ্য সরকার বাসমালিকদের সমস্যার কথা ভাবছে না। ডিজেলের অস্বাভাবিক দাম বেড়ে যাওয়ায় রাস্তায় বাস নামানো কার্যত অসম্ভব হয়ে পড়ছে। বাস শিল্পটাই ক্রমশ উঠে যাওয়ার পথে। তাই বেসরকারি বাসকে বাঁচাতেই আজ আমরা বাধ্য হয়ে রাজ্যপালের দ্বারস্থ হয়েছি।” এবিষয়ে জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেটের সাধারণ সম্পাদক তপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আমরা অনেকদিন ভরসা করলাম কিন্তু রাজ্য আমাদের ভাড়া বৃদ্ধির দাবি মানেনি। তাই বাধ্য হয়েই রাজ্যপালের দ্বারস্থ হয়েছি। যাতে কিছু জিনিস উনি মকুব করতে পারেন।”

প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণ রুখতে দীর্ঘ কয়েকমাস লকডাউনের জেরে সম্পূর্ণ বন্ধ ছিল গণপরিবহণ। এরপর আনলক পর্যায়ে রাজ্যের তরফে গণপরিবহণের অনুমতি দেওয়া হলেও বেঁধে দেওয়া হয় যাত্রী সংখ্যা৷ এতে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে বাস মালিকরা। ফলে রাজ্য সরকারের কাছে বাসভাড়া বৃদ্ধির আবেদন করেন বাস মালিক সংগঠন৷ কিন্তু রাজ্য সরকার তাতে রাজি না হওয়ায় বেশকিছুদিন বেসরকারি বাস রাস্তায় নামানো হয়নি। তবে পরে অবশ্য রাজ্যের নির্দেশে পুরনো ভাড়াতেই রাস্তায় নামে বেসরকারি বাস। কিন্তু বাস নামালেও এরপরই একাধিকবার ভাড়া বৃদ্ধি-সহ বিভিন্ন দাবি জানিয়েছিলেন মালিকরা। এমনকি দাবি মানা না হলে বাস তুলে নেওয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছিলেন। কিন্তু তাতেও নিজের সিদ্ধান্ত বদল করেনি রাজ্য সরকার। সেই কারণেই নিজেদের এবার রাজ্যপালের দ্বারস্থ বাস মালিকরা।

ভাড়া বৃদ্ধি সহ একাধিক দাবিতে রাজ্যপালের দ্বারস্থ হলেন জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেট 1