করোনা আবহে বদলে গেল মাধ্যমিকের রিভিউ ও স্ক্রুটিনির নিয়ম, আর বাধ্যতামূলক নয় পড়ুয়াদের স্বাক্ষর

85

ওয়েব ডেস্ক : করোনা আবহে এবছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলিতে বদলে গিয়েছে বহু নিয়ম। এরমধ্যেই রিভিউ ও স্ক্রুটিনির বিষয়ে নতুন নিয়ম চালু করলো মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। এতদিন রিভিউ ও স্ক্রুটিনির আবেদনের ক্ষেত্রে আবেদনপত্রে ছাত্র- ছাত্রীদেরকে স্বাক্ষর বাধ্যতামূলক ছিল। এবার করোনা পরিস্থিতিতে সেই নিয়মই এর সংশোধন করল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ৷ শুক্রবার মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফে একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে৷ নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, এবার থেকে রিভিউ ও স্ক্রুটিনির আবেদনপত্র জমা দেবার জন্য আর ছাত্র-ছাত্রীদের স্বাক্ষরের প্রয়োজন নেই। তার পরিবর্তে এবার অভিভাবকরাই স্বাক্ষর করে আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন৷

আরও পড়ুন -  আয়তন কমিয়ে ছোট করা হচ্ছে কন্টেনমেন্ট জোনের, নতুন সীমা তৈরি করছে রাজ্য সরকার

পর্ষদ সূত্রে খবর, আগামী ১৭ আগস্ট পর্যন্ত পর্ষদের রিজিওনাল অফিসগুলি মারফত রিভিউ অফ স্ক্রুটিনি জন্য আবেদনপত্র জমা দেওয়া যাবে৷ ইতিমধ্যেই পড়ুয়ারা তাদের মার্কশিট ও সার্টিফিকেট হাতে পেয়েছে। পর্ষদের নির্দেশ অনুযায়ী এবার আর পড়ুয়াদের হাতে মার্কশিট তুলে দেওয়া হয়নি। বদল মধ্যশিক্ষা পর্ষদের ক্যাম্প অফিস থেকে অবিভাবকদের হাতে মার্কশিট ও সার্টিফিকেট তুলে দিয়েছেন স্কুলগুলি৷

মাধ্যমিকের ফলাফল ঘোষণার দিন মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফে জানানো হয়েছিল, চলতি মাসের ২২ ও ২৩ তারিখ অর্থাৎ বুধবার ও বৃহস্পতিবার মধ্যশিক্ষা পর্ষদের ক্যাম্প অফিস থেকে মার্কশিট ও সার্টিফিকেট বিতরণ করবে স্কুলগুলি৷ কিন্তু রাজ্যে মারণ ভাইরাসের থাবা দিন দিন যেভাবে চওড়া হচ্ছে তাতে শক্ত হাতে হাল ধরতে প্রতি সপ্তাহে দু’দিন লকডাউনের ঘোষণা করা হয়। সে অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সম্পূর্ণ লকডাউন থাকায় সেদিন মার্কশিট ও সার্টিফিকেট বিতরণ বন্ধ রাখা হয়েছিল৷ তার পরিবর্তে স্কুলগুলির তরফে শুক্রবার অবিভাবকদের মার্কশিট ও সার্টিফিকেট বিতরণ করা হয়েছে৷

আরও পড়ুন -  করোনা হানা রাজ্য বিজেপির অন্দরে! মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন বিজেপি নেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল

তবে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কায় স্কুলগুলির তরফে একসঙ্গে একাধিক পড়ুয়ার অভিভাবকদের মার্কশিট ও সার্টিফিকেট বিতরণ করা হয়নি। এর বদলে ছাত্রছাত্রীদের রোল নাম্বার ধরে ধরে অভিভাবকদের ফোন করে স্কুলের তরফ জানানোর পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়। প্রসঙ্গত, গত বুধবার সকাল ১০ টায় মাধ্যমিকের ফলাফল প্রকাশিত হয়৷ ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর প্রতিবছরের মতো এবছর ফলপ্রকাশের দিনই ছাত্র ছাত্রীদের মার্কশিট ও সার্টিফিকেট দেওয়া হয়নি৷ কলকাতায় এবছর পাশের হার ছিল ৯১.০৭%। সাফল্যের হার সর্বোচ্চ পূর্ব মেদিনীপুরে। দ্বিতীয় স্থানে পশ্চিম মেদিনীপুর ও তৃতীয় স্থানে কলকাতা। এবার মাধ্যমিকে পাশের হার ৮৬.৩৪ %। যা সর্বকালের রেকর্ড।

করোনা আবহে বদলে গেল মাধ্যমিকের রিভিউ ও স্ক্রুটিনির নিয়ম, আর বাধ্যতামূলক নয় পড়ুয়াদের স্বাক্ষর 1