বিহার নয়, সুশান্তকে বিশ্ব চিনিয়েছে মুম্বাই, বিস্ফোরক মন্তব্য উদ্ধব সরকারের

164

ওয়েব ডেস্ক : সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত নিয়ে ইতিমধ্যেই মহারাষ্ট্র- বিহার সরকারের মধ্যে তরজা চূড়ান্ত রূপ নিয়েছে। যত দিন যাচ্ছে সুশান্ত মৃত্যুর ঘটনা ক্রমশ রাজনৈতিক ইস্যুতে পরিণত হচ্ছে৷ বিহার পুলিশের তদন্তকারী দল ইতিমধ্যেই বিহারে ফিরে গিয়েছে। এদিকে সুশান্ত মৃত্যুর তদন্তভার বিহার পুলিশ পাওয়া সত্ত্বেও মামলার যাবতীয় তথ্য বিহারের সরকারের হাতে তুলে দিতে নারাজ মহারাষ্ট্র সরকারও। এদিকে সুশান্ত পরিবারের দাবি মেনে কেন্দ্র সরকারের কাছে সিবিআইয়ের জন্য সুপারিশ করেন নীতিশ কুমার। তাতে অবশ্য মান্যতা দিয়েছে সিবিআই। পাশাপাশি ইডির তরফেও জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে। সিবিআই, ইডি, বিহার-মুম্বাই পুলিশ সবমিলিয়ে সুশান্ত মৃত্যুর তদন্ত এই মুহূর্তে দেশবাসীর কাছে সবচাইতে আলোচনার বিষয়। তবে এই সকল ঘটনার মাঝেই বিস্ফোরক এক মন্তব্য করে বসেন শিব সেনা সরকার। তাদের বক্তব্য “বিহার সুশান্তের জন্য কিছুই করেনি, অভিনেতা হিসেবে তাঁকে বিশ্বের কাছে চিনিয়েছিল মুম্বই।”

আরও পড়ুন -  সুশান্ত মৃত্যুতে নয়া মোড়! মাদক পাচার চক্রের সাথে যোগসূত্র রয়েছে সৌভিকের, দাবি মাদক পাচারকারীর

তবে এবিষয়ে শিব সেনার এক দলীয় মুখপত্রে লেখা হয়েছে, ”সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু মামলা নিয়ে বিহার সরকারের হস্তক্ষেপ করা উচিত নয়। গত কয়েকবছর ধরে সুশান্ত তো মুম্বইয়ের বাসিন্দা। সুশান্তের জীবনের লড়াইয়ে বিহার শামিল হয়নি, বরং ওকে খ্যাতি এনে দিয়েছিল মুম্বই।” এদিকে সুশান্তের এমন আকস্মিক মৃত্যুর ঘটনা কোনওভাবেই মেনে নিতে পারছে না বিহার পুলিশ। প্রথম দিন থেকেই তাঁরা তদন্তের দাবি রেখেছে। সে অনুযায়ী সুপ্রিম কোর্টেও গিয়ে বিহার পুলিশ। যা এখন সুপ্রিম কোর্টের দোরগোড়ায়।

এই ঘটনায় শিব সেনার বিস্ফোরক অভিযোগ, সুশান্তের মৃত্যুকে হাতিয়ার করে বিহার ও দিল্লিতেও রাজনীতি চলছে। এবিষয়ে শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত জানান, ”সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে বিহার-দিল্লিতে যেভাবে রাজনীতি হচ্ছে, আমার মনে হয় এটা মহারাষ্ট্র সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।” তবে উলটো দিকে মুম্বই পুলিশের বিরুদ্ধে পালটা অভিযোগ করেছে বিহার পুলিশ। তাদের অভিযোগ দোষীদের আড়াল করছে মুম্বাই পুলিশ৷ এদিকে দিন কয়েক আগেই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেও এই প্রসঙ্গে সরব হয়ে বলেছেন, “একটা মৃত্যুকে হাতিয়ার করে বিহার-মহারাষ্ট্রের সম্পর্ক নষ্ট করবেন না দয়া করে।” থেমে থাকেননি ঠাকরে পুত্র আদিত্য ঠাকরে। বাবার মন্তব্যের রেশ ধরে ছেলে আদিত্যও বলেছেন, “ঠাকরে পরিবারের বিরুদ্ধে কদর্য মন্তব্য করে সম্মানহানির চেষ্টা চলছে। মহারাষ্ট্র সরকার যে পারদর্শীতার সঙ্গে কোভিড পরিস্থিতি সামলাচ্ছে, সেটাই আসলে বিরোধী দলের কাছে চক্ষশূল হয়ে দাঁড়িয়েছে।”

আরও পড়ুন -  উত্তরপ্রদেশে মৃত্যু মিছিল, সংশোধিত নাগরিক আইনের প্রতিবাদে গুলিতে মৃত্যু বেড়ে ১১

এদিকে বিহারের তদন্তকারী দল মুম্বাই পৌঁছানোর পর তাদের অসহযোগীতার কারণে মুম্বই পুলিশের সমালোচনা করেন বিহার পুলিশের প্রধান গুপ্তেশ্বর পান্ডে। তাঁর মন্তব্যের ভিত্তিতে শিবসেনার দলীয় মুখপত্র ‘সামনা’ পত্রিকায় আক্রমণ করে লেখা হয়েছে, ”গুপ্তেশ্বর পান্ডে আসলে বিজেপি কিংবা জেডিইউ এর টিকিটে বিহার নির্বাচনে লড়াই করতে চাইছেন। আর তাই তিনি মুম্বই পুলিশের বিরুদ্ধে এমন কদর্য আক্রমণ করছেন।” এই মূহুর্তে বিহার-মুম্বাই পুলিশ, উদ্ধব-নীতিশ সরকারের তরজা যেভাবে চলছে, তাতে সুশান্ত মৃত্যুর ঘটনাকে হাতিয়ার করে আসন্ন নির্বাচনে বিহার সরকার তাদের রাজনৈতিক পদ মসৃণ করছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

বিহার নয়, সুশান্তকে বিশ্ব চিনিয়েছে মুম্বাই, বিস্ফোরক মন্তব্য উদ্ধব সরকারের 1