বিজেপি জেতার পরই হলদিয়ার কারখানায় উৎপাদন বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ তৃনমূলের বিরুদ্ধে! মুখ্যমন্ত্রী কে চিঠি দিল ফসমি

233
Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: শিল্প বিরোধী তকমা ছিলই তৃনমূলের বিরুদ্ধে যদিও বিজেপি জুজুর বিরুদ্ধে বিপুল জয় পেয়েছে তৃনমূল কিন্তু সেই জয়ের পর সেই শিল্প বিরোধী তকমাটা মোছার লক্ষণ নেই যেন।  উল্টে সেই তকমাটাই যেন আরও জোরালো  হল হলদিয়ায়। শিল্পের মরা গাঙ আরও চওড়া করে বন্ধ করে দেওয়া হল হলদিয়ার একটি শিল্প কারখানা।

Advertisement

জানা গেছে কারখানা দুটির কয়েকজন কর্মীকে ছাঁটাই করে নিজেদের লোককে নিযুক্ত করতে হবে এমনই দাবি তুলে  উৎপাদন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আর সেই অভিযোগ উঠল হলদিয়ার স্থানীয়  তৃনমূল নেতার বিরুদ্ধে। গত ২তারিখ ভোট গণনা হয়েছে আর দুদিনের মাথায় অর্থাৎ ৪ঠা মে থেকে ওই দুটি কারখানায় শ্রমিক দের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছেনা এমনই অভিযোগ কারখানা কর্তৃপক্ষের।

Advertisement
Advertisement

হলদিয়ার বৃহৎ শিল্পের আনুষঙ্গিক দ্রব্য উৎপাদনকারি ওই অনুসারি শিল্প কারখানা দুটি ৪দিন ধরে বন্ধ হয়ে থাকায় ব্যাপক লোকসানের মুখে কারখানা দুটি। এদিকে ঘটনায় শতাধিক কর্মচারী কর্মহীন হয়ে রয়েছেন। অবস্থা বেশিদিন গড়ালে এক্সাইটের মত ব্যাটারি উৎপাদন কারি সংস্থাও বিপদে পড়তে পারে কারন বন্ধ হওয়া কারখানা ওই সংস্থাকে ব্যাটারির কয়েকটি আনুষঙ্গিক দ্রব্য সরবরাহ করে থাকে।

জানা গেছে হলদিয়ার দেউলপোতা এলাকায় অবস্থিত এই দুটি প্লাস্টিক কারখানার কাজ বন্ধ করে দেওয়ার ঘটনায় হস্তক্ষেপের জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের সংগঠন ফেডারেশন অফ স্মল এন্ড মিডিয়ায় ইন্ডাস্ট্রি বা ফসমি। মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি মুখ্যসচিব এবং সংশ্লিষ্ট মহলে চিঠি লিখতে গিয়ে ফসমির পশ্চিমবঙ্গ সভাপতি বিশ্বনাথ ভট্টাচার্য আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন এই ঘটনায় রাজ্য সম্পর্কে ভুল বার্তা যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন বর্তমান অতিমারির সময়ে যখন ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প এমনিতেই সঙ্কট জনক অবস্থায় রয়েছে তখন এই ধরনের কার্যকলাপ রাজ্যের শিল্পপতিদের নিরুৎসাহিত করবে।

বন্ধ হয়ে যাওয়া শিল্প সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর কালিপদ ভূইঁয়া বলেন, স্থানীয় তৃণমূলের ব্লক সভাপতি অশোক মাইতি কয়েকজন কর্মীকে বাদ দেওয়ার দাবি জানান কারন তারা বিজেপিকে সাহায্য করেছে। পরিবর্তে তাঁরা নিজেদের লোক নিয়োগ করতে চাইছে। এই দাবিতে তারা কারখানায় শ্রমিকদের ঢোকা বন্ধ করে দিয়ে গেট আটকে দেয় এবং দলীয় পতাকা লাগিয়ে দেয়। এরফলে উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। মাইতির সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনা ব্যর্থ হয়েছে বলেও জানিয়েছে কারখানা কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি জেলা ও রাজ্য আইএনটিটিইউসির সভাপতি দোলা সেনকেও।

ঘটনার কথা স্বীকার করে নিয়ে ওই তৃণমূল নেতা জানান, ওই কর্মীরা তৃণমূলের কর্মী, ভোটে অন্তর্ঘাত করেছে বলেই এই সিদ্ধান্ত। যদিও আইএনটিটিইউসি নেতা শিবনাথ সরকার বিষয়টি অনৈতিক বলে জানিয়েছেন। উল্লেখ্য রাজ্যে তৃনমূলের বিপুল জয় এলেও হলদিয়ায় বিজেপির কাছে পরাজিত হয়েছে তৃনমূল প্রার্থী আর সেই কারণেই শ্রমিকদের টাইট দেওয়ার লক্ষ্যেই এই ঘটনা বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। এক বিজেপি নেতা জানিয়েছেন, ‘হলদিয়ায় এ জিনিস নতুন কিছু নয়। তৃনমূলের এই আচরণের কারণেই একের পর এক শিল্প বন্ধ হয়ে গেছে হলদিয়ায়। যেহেতু শিল্পাঞ্চলে তৃনমূল পরাজিত হয়েছে তাই প্রতিহিংসা মেটাতেই  সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হচ্ছে।’