জেলাশাসকের দফতরে মনোনয়ন জমা করতে গিয়ে পুলিশে সামনেই বাবুলকে ঘিরে বিক্ষোভ তৃণমূলের

200
জেলাশাসকের দফতরে মনোনয়ন জমা করতে গিয়ে পুলিশে সামনেই বাবুলকে ঘিরে বিক্ষোভ তৃণমূলের 1

নিউজ ডেস্ক: মনোনয়ন জমা করতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন বিজেপির শিল্পী প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়। সোমবার রোড শো করে আলিপুরে জেলাশাসকের দফতরে মনোনয়ন দাখিল করতে যান বাবুল। কিন্তু জেলাশাসকের অফিসে ঢোকার আগে বাবুলের গাড়ি ঘিরে তুমুল বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা। পুলিশের সামনেই বিক্ষোভ দেখানো হয়।

উল্লেখ্য, কেবল এদিনই নয়, বেশ কিছুদিন ধরেই বিক্ষোভের মুখে পড়ছেন বিজেপি প্রার্থী বাবুল। কয়েকদিন আগেই ভবানীপুরে প্রচারে গিয়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। সেখানেও তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরা।

জেলাশাসকের দফতরে মনোনয়ন জমা করতে গিয়ে পুলিশে সামনেই বাবুলকে ঘিরে বিক্ষোভ তৃণমূলের 2

এছাড়াও রবিবাসরীয় সকালে গল্ফগ্রিন সেন্ট্রাল পার্কে নির্বাচনী প্রচারে এসেছিলেন বাবুল। সেন্ট্রাল পার্কে তখন অন্য দিনের মতো প্রাতঃভ্রমণকারীদের ভিড়। সেন্ট্রাল পার্কের চার ধারে এক চক্কর হেঁটে জনসংযোগ সারতে পার্কের ভেতরে ঢুকে পড়েন বাবুল সুপ্রিয়। সঙ্গে ছিলেন এলাকার পরিচিত মুখ ও স্থানীয় বিজেপি নেতা দিলীপ চন্দ। সেন্ট্রাল পার্কের ভেতরে তখন শরীর চর্চায় ব্যস্ত আট থেকে আশি। প্রৌঢ়দের কাছাকাছি পৌঁছে আলাপচারিতা সারতে শুরু করেন টালিগঞ্জ কেন্দ্রের পদ্ম শিবিরের শিল্পী প্রার্থী। প্রাতঃভ্রমণকারীদের সঙ্গে কুশল বিনিময়ের মাঝেই প্রশ্ন ভেসে আসে,”নির্বাচনে জিতলে এই রাজ‍্যে আপনাদের মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন? মুখ‍্যমন্ত্রীর মুখ কে?” হঠাৎ করেই উড়ে আসা এই প্রশ্নে খানিকটা হকচকিয়ে যান বাবুল সুপ্রিয়। চটজলদি পরিস্থিতি সামাল দিতে বাবুল উত্তর দেন, “সেটা নির্বাচন পরবর্তী পর্যায়ে দল সিদ্ধান্ত নেবে।”

তবে উত্তর দিলেও তিনি যে খানিকটা অস্বস্তিতে পড়েন, সেটা স্পষ্ট। আর খুব বুদ্ধিমত্তার সঙ্গেই আলোচনা অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেন বাবুল। খোঁজ নেন শরীরচর্চা করতে আসা প্রাতঃভ্রমণকারীদের নিত্যদিনের সুবিধা-অসুবিধার। এরপর আর বেশি সময় সেন্ট্রাল পার্কে ছিলেন না বাবুল সুপ্রিয়। বিক্রমগড় সহ দক্ষিণের অন্যান্য জায়গায় নির্বাচনী প্রচারের কর্মসূচি থাকায় দ্রুত বেরিয়ে যান বাবুল সুপ্রিয়।

প্রসঙ্গত টালিগঞ্জ কেন্দ্রে বাবুল সুপ্রিয়কে প্রার্থী করেছে বিজেপি। এই কেন্দ্রে বাবুলের প্রতিপক্ষ তৃণমূলের অরূপ বিশ্বাস এবং টালিগঞ্জ কেন্দ্রে বাম ও কংগ্রেস জোটের প্রার্থীর দেবদূত ঘোষ। টালিগঞ্জে পা রেখেই অরূপ বিশ্বাসকে নিশানা করেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। পাশাপাশি একাধিকবার তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করেিছলেন বাবুল। প্রথমে টালিগঞ্জেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার কথা ভেবেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরে তিনি শুধু নন্দীগ্রামেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নেন। মমতা দাঁড়াতে পারেন আঁচ করেই বাবুলরে টালিগঞ্জ কেন্দ্রে প্রার্থী করে বিজেপি। অন্তত এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

Previous articleমেদিনীপুরে সিপিএম নেত্রীর বাড়িতে ভাঙচুর! তছনছ করা হল দলীয় পতাকা, প্রচার সামগ্রী
Next articleসামনে ভোট; বাইক ব়্যালি নিষিদ্ধ করল নির্বাচন কমিশন