TVS নিয়ে আসছে এক ধামাকাদার স্কুটি, জেনে নিন কেন স্পেশাল এই স্কুটি!

280
image credit: tvsauto
TVS নিয়ে আসছে এক ধামাকাদার স্কুটি, জেনে নিন কেন স্পেশাল এই স্কুটি! 1

টেক ডেস্ক: বর্তমানে পুরো বিশ্বের পাশাপাশি আমাদের দেশেও ইলেকট্রিক গাড়ি বা বাইক কেনার প্রবণতা বাড়ছে গ্রাহকদের। আর গ্রাহকরা ইলেকট্রিক বাইক বা গাড়ি কেনার চাহিদা দেখানোয় কোম্পানিগুলি আরও উন্নত প্রযুক্তি আনার বিষয়ে জোর দিচ্ছে। এবার ভারতের বাজারে ইলেকট্রিক বাইকের জোয়ার আনছে জনপ্রিয় মোটরবাইক প্রস্তুতকারী সংস্থা TVS । তারা এবার ভারতের বাজারে TVS iQube ইলেকট্রিক বাইক লঞ্চ করছে। এই ইলেকট্রিক বাইক সম্বন্ধে জেনে নিন বিস্তারিত।

TVS নিয়ে আসছে এক ধামাকাদার স্কুটি, জেনে নিন কেন স্পেশাল এই স্কুটি! 2

স্পেসিফিকেশন
TVS iQube বাইকে ৪.৪ kw- এর একটি ইলেকট্রিক মোটর আছে যাকে শক্তি প্রদান করে ইলেকট্রিক ব্যাটারি। এই বাইকটি একবার চার্জ করলে ৭৫ কিলোমিটার অব্দি যেতে পারে। এই ইলেক্ট্রিক স্কুটির সর্বোচ্চ স্পিড ৭৮ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা। এই স্কুটি ০-৪০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা স্পিডে যেতে সময় নেয় মাত্র ৪.২ সেকেন্ড। ইলেকট্রিক স্কুটিতে একাধিক অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার করা হয়েছে। এই স্কুটিতে আছে রিজেনারেটিভ ব্রেকিং, যা সত্যিই অবক করার মতন। স্কুটির সামনে এলইডি হেড লেম্প ব্যবহার করা হয়েছে। রাইডারের প্রয়োজনমতো স্কুটিতে ইকোনোমি মোড ও পাওয়ার মোড আছে। সেইসাথে স্কুটি একটি স্মার্ট স্কুটি। ব্লুটুথ এর মাধ্যমে আপনার স্মার্টফোনের সাথে কানেক্ট করতে পারবেন।

TVS নিয়ে আসছে এক ধামাকাদার স্কুটি, জেনে নিন কেন স্পেশাল এই স্কুটি! 3

দাম
এবার আসা যাক ইলেকট্রিক স্কুটির দাম সম্বন্ধে। স্কুটির ভারতীয় বাজারে এক্স শোরুম মূল্য ১.০৮ লাখ টাকা। আপনি যদি এই মুহূর্তে স্কুটি কিনতে চান তাহলে মাত্র ৫০০০ টাকা দিয়ে স্কুটি প্রি-বুকিং করতে পারেন। আপনার যদি এই মুহূর্তে একটি ইলেক্ট্রিক স্কুটি দরকার হয় তাহলে অবশ্যই টিভিএস কোম্পানির এই ইলেকট্রিক স্কুটার কথা ভেবে দেখতে পারেন।

এছাড়াও এই স্কুটি কেনার আরও একটি বিশেষ কারণ আপনাকে প্রভাবিত করতে পারে, আর সেটি হল- বর্তমানে বিশ্বজুড়ে পরিবেশ দূষণ একটা গভীর সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। কলকারখানা থেকে শুরু করে গাড়িতে জীবাশ্ম জ্বালানির অনিয়ন্ত্রিত দহনের ফলে বায়ুদূষণে কলুষিত হয়ে যাচ্ছে বিশ্ব। আর ভবিষ্যতের কথা ভেবে গোটা মানবজাতি বর্তমানে পরিবেশ দূষণ কমানোর উদ্দেশ্যে নিরন্তন চেষ্টা করে যাচ্ছে। মানুষটা বুঝেছে জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহারের তুলনায় ইলেকট্রিক গাড়ি বা বাইক আমাদের ভবিষ্যৎ হতে পারে। এই ইলেকট্রিক গাড়ি বাইকের দুনিয়াকে খুব তাড়াতাড়ি মেনে নিতে হবে মানবজাতিকে। আর সেই প্রচেষ্টায় না হয় আপনিও কিছুটা সহায়তার হাত বাড়িয়েই দিলেন।

Previous articleরক্তাল্পতা ও নতুন মায়েদের জন্য অত্যন্ত উপকারী কুমড়া শাক, এছাড়াও রয়েছে এর আরও চমৎকারী গুণ
Next articleশোভন-বৈশাখীকে কড়া জবাব দিতে মানহানির মামলার সিদ্ধান্ত দেবশ্রীর