হদিশ মেলেনি নবান্ন অভিযানে নিঁখোজ বাম কর্মী দীপক পাঁজার, ব্রিগেড সমাবেশে এসে ফের নিখোঁজ দুজন 

233
হদিশ মেলেনি নবান্ন অভিযানে নিঁখোজ বাম কর্মী দীপক পাঁজার, ব্রিগেড সমাবেশে এসে ফের নিখোঁজ দুজন  1

 

নিউজ ডেস্ক : একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে বামেদের ব্রিগেডে নজর ছিল প্রত্যেকের। ব্রিগেড শেষে নিখোঁজ হয়ে যান দুজন। এবারের ব্রিগেডে গিয়েছিলেন কংগ্রেস এবং ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্টের নেতা-কর্মীরা। বেলা বাড়তেই কার্যত জনসমুদ্রে পরিণত হয় ব্রিগেড। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কর্মীরা জড়ো হয়েছিলেন সেখানে।

হদিশ মেলেনি নবান্ন অভিযানে নিঁখোজ বাম কর্মী দীপক পাঁজার, ব্রিগেড সমাবেশে এসে ফের নিখোঁজ দুজন  2

 

জানা গিয়েছে, ব্রিগেডের সভা শেষে হদিশ পাওয়া যাচ্ছিল না ১২ জনের। পরবর্তীতে তাদের ১০ জনকে খুঁজে পাওয়া গেলেও এখনও নিখোঁজ দু’জন। তাঁদের মধ্যে একজন কিশোর, একজন প্রৌঢ়। নিখোঁজ কিশোরের নাম সৌরভ দে। কলকাতার নারকেলডাঙার বাসিন্দা সে। নিখোঁজ প্রৌঢ়ের নাম রফিকুল, আমডাঙার বাসিন্দা তিনি। ঘটনার পর উদ্বিগ্ন তাদের পরিবারের সদস্যরা।

 

ব্রিগেডের পর একদিন পেরিয়ে গেলেও এখনও বাড়ী ফেরেননি তাঁরা। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই বাম নেতৃত্বের তরফে এবিষয়ে কলকাতা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। নিখোঁজদের পরিবারের সদস্যরাও দ্বারস্থ হয়েছে পুলিশের।

 

এদিকে ১১ই ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার নবান্ন অভিযানে গিয়ে এখনও পর্যন্ত নিখোঁজ পাঁশকুড়ার বহরপোতা গ্রামের বাসিন্দা দীপক পাঁজা। ঐদিন চাকরি, শিক্ষা-সহ একাধিক দাবিতে নবান্ন অভিযানের ডাক দিয়েছিল বাম ছাত্র সংগঠন। সেই কর্মসূচিতে যোগ দিতে পাঁশকুড়া থানার বাহারপোতা গ্রামের বাসিন্দা দীপক পাঁজাও এসেছিলেন হাওড়া। কিন্তু তারপর থেকেই বেপাত্তা তিনি। দীপক বাবুর স্ত্রী সরস্বতী দেবী জানিয়েছিলেন, বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টার দিকে কলকাতার যাওয়ার জন্য বাড়ী থেকে বেরিয়ে যান উনি। সন্ধ্যায় প্রতিবেশীরা জানান ওঁকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। উনি পড়াশোনা জানেন না। কোথায় আছেন? কি অবস্থায় আছেন কিছুই জানেন না তিনি। পুলিশ যেন ওঁনাকে খুঁজে বার করে দেয়, বলে কাতর আর্জিও জানান তিনি।

 

তাঁর পরিবার সূত্রে জানা যায়, আন্দোলনে অংশ নেওয়ার জন্য দলের কর্মীদের সঙ্গে রওনা হয়েছিলেন কলকাতার দিকে। তারপর বাড়ী ফেরেননি আর। কলকাতার নিউমার্কেট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তাঁর পরিবার। জানানো হয় লালবাজারেও। তবে পুলিশ, আদালত পর্যন্ত জল গড়ালেও এখনও খোঁজ মেলেনি তাঁর। আর পরিবারের কর্তার অন্তর্ধানে মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়ে তাঁর স্ত্রী সরস্বতী দেবীর। আর তারপরে নবান্ন অভিযানে গিয়ে আক্রান্ত বাঁকুড়ার ডিওয়াইএফআই কর্মী মইদুল ইসলাম মিদ্যার মৃত্যুর খবর পেতেই আতঙ্কের কালো ছায়া গ্রাস করেছে সরস্বতী দেবীকে। রবিবার স্বামী দীপককে খুঁজতে ব্রিগেড ময়দানে এসেছিলেন সরস্বতী পাঁজা।