বিজেপি নেতার অস্বাভাবিক মৃত্যুকে ঘিরে দুই হোয়াটস‍্যাপ চ‍্যাট! পরস্পর খুনের অভিযোগে উদয়ন-নিশীথ

512
বিজেপি নেতার অস্বাভাবিক মৃত্যুকে ঘিরে দুই হোয়াটস‍্যাপ চ‍্যাট! পরস্পর খুনের অভিযোগে উদয়ন-নিশীথ 1

অশ্লেষা চৌধুরী: ‘ওকে শেষ করে দে।”- বিজেপি নেতাকে প্রাণেমেরা ফেলার নির্দেশ দেওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ঘিরে চাঞ্চল্য কোচবিহারে। হুমকি দেওয়া ব্যক্তি আর কেউ নন, দিনহাটার তৃণমূল প্রার্থী উদয়ন গুহ। তাঁরই এমন একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ফাঁস করেছেন সেখানকারই বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক। আর এই বিজেপি নেতা যাকে হুমকি দেওয়া হয়েছিল, তিনি আর কেউ নন, তিনি হলেন অমিত সরকার, যার ঝুলন্ত দেহ কিছুদিন আগেই একটি পশু চিকিৎসালয়ের সামনে থেকে উদ্ধার হয়েছিল।

রবিবার নিশীথ প্রামাণিক একটি চ্যাট ফাঁস করেছেন, যেখানে দিনহাটার তৃণমূল প্রার্থী উদয়ন গুহকে লিখতে দেখা যাচ্ছে যে, ‘ওকে শেষ করে দে।” অপরদিকে দিনহাটার তৃণমূল প্রার্থী উদয়ন গুহ শনিবার রাতে একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ফাঁস করেছিলেন, যেটা নিশীথ প্রামাণিকের বলে দাবী করেন তিনি। সেখানেও বিজেপির প্রয়াত নেতা অমিত সরকারকে নিয়েই কথা বলা হয়েছে। আর নিশীথকে এটা লিখতে দেখা গিয়েছে যে, অমিত সরকারকে রাস্তা থেকে সরিয়ে দেওয়া হোক।

বিজেপি নেতার অস্বাভাবিক মৃত্যুকে ঘিরে দুই হোয়াটস‍্যাপ চ‍্যাট! পরস্পর খুনের অভিযোগে উদয়ন-নিশীথ 2

এই দুই চ্যাট ঘিরে তোলপাড় রাজার শহর। উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই কোচবিহার জেলার দিনহাটায় পশু হাসপাতালের বারান্দায় দেখতে পাওয়া যায় বিজেপি-র মণ্ডল সভাপতি অমিত সরকারের ঝুলন্ত দেহ। তা নিয়ে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দফায় দফায় উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। ঘটনার কথা জানাজানি হতেই রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ তথা দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিক। তিনি সরাসরি শাসক শিবিরকে এই ঘটনার জন্য ধিক্কার জানান। পাশাপাশি উদয়ন গুহকে তোপ দেগে বলেন, তিনি এই ধরণের হত্যাকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন অনবরত। রতন বর্মণ, অলোক নিতাই দাসের হত্যাকাণ্ডের জন্য তিনি শাসক শিবির তথা উদয়নকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করান। এদিন মন্ডল সভাপতিকে ঘুম থেকে ডেকে এনে নারকীয় ভাবে হত্যা করে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেই অভিযোগ করেন বিজেপি প্রার্থী নিশীথ। উদয়ন গুহ ও তাঁর দল দিনহাটায় সন্ত্রাসের বাতাবরণ সৃষ্টি করতে চাইছেন, তাঁর জবাব চান নিশীথ। তাঁর নেতৃত্বে থানায় গিয়ে দ্রুত তদন্তের দাবী জানান বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা।

যদিও, পরে কমিশনের রিপোর্টে বলা হয় যে, অমিত সরকার আত্মহত্যা করেছিল। তবে এই দুই ফাঁস হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ঘিরে নতুন করে চাঞ্চল্য ছড়াল কোচবিহারে।

উল্লেখ্য, দ্য খড়গপুর পোস্ট এই দুই ফাঁস হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের সত্যতা যাচাই করেনি।