উত্তরের নির্বাচনী সমাবেশে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি; তুলোধনা করলেন মমতার সরকারকে

182
উত্তরের নির্বাচনী সমাবেশে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি; তুলোধনা করলেন মমতার সরকারকে 1

নিউজ ডেস্ক: এই রাজ্যে সরকারি প্রকল্পর সুবিধা পেতে হলে তৃণমুল কর্মীদেরও কাটমানি দিতে হয়। রাজ্যের মানুষ এখন জয় শ্রীরাম বলছে। আর দিদি জয় শ্রীরাম শুনলেই ক্ষেপে যাচ্ছেন। উত্তরবঙ্গে প্রার্থীর হয়ে প্রচারে এসে এভাবেই মমতা ও শাসক দলকে আক্রমণ শানালেন কেন্দ্রীয় শিশু ও নারী কল্যান মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি।

মমতাকে কটাক্ষ করে তিনি এদিন আরও বলেন, ‘বাংলায় কেউ ঠাকুরের নাম নিতে পারছেন না অথচ দিদি নন্দীগ্রামে গিয়ে নিজে চন্ডীপাঠ করছেন। স্মৃতি ইরানির দাবী করেন, দিদির নন্দীগ্রামে খেলা শেষ হয়ে গেছে। টিএমসি এবার যাচ্ছে। স্মৃতি অভিযোগ করে বলেন, ‘ জলপাইগুড়িতে হাইকোর্ট নির্মানের টাকা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী, দিদি সেই কাজ এখনও শেষ করেননি। পানীয় জলের জন্য প্রধানমন্ত্রী ৯০০ কোটি টাকা দিয়েছেন, আর জলপাইগুড়ির মানুষ অপরিশোধিত জল পান করছে।

উত্তরের নির্বাচনী সমাবেশে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি; তুলোধনা করলেন মমতার সরকারকে 2

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আশ্বাস দিয়ে বলেন, “আমরা উত্তরবঙ্গে রাজবংশী টুরিজম সার্কিট বানাবো। এছাড়া উত্তরবঙ্গ ডেভেলপমেন্ট বোর্ড বানাবো।“ চা শ্রমিকদের মজুরি ৩৫০ টাকা করে দেওয়ার কথাও এদিন বলেন তিনি। শেষের দিকে খালি গলায় বক্তব্য শেষ করে শিলিগুড়ি চলে যান স্মৃতি ইরানি। সেখানে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে স্মৃতি ইরানি বলেন, এই জেলায় আদিবাসী নারীরা ধর্ষিতা হয়ে খুন হচ্ছে। দিদি তার বিচার করে না বলে তার অভিযোগ।

খড়িবাড়িতে বিজেপি প্রার্থী দুর্গা মুর্মুর সমর্থনে প্রচার করতে আসেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। খড়িবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে আয়োজিত জনসভায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে তিনি বলেন, বাংলার মানুষ এবার পরিবর্তনের মনস্থ করেছে এবং ভারতীয় জনতা পার্টির সরকার গঠন হতে চলেছে। নরেন্দ্র মোদী যা প্রতিশ্রুতি দেন তা পূরণ করেন বলে আশ্বাস দেন স্মৃতি ইরানি।

এদিন আলিপুরদুয়ারের ফালাকাটায় দলীয় প্রার্থী দীপক বর্মণের সমর্থনেও একটি জনসভায় যোগ দিয়ে এলাকায় ঢালাও উন্নয়নের বার্তা দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেত্রী স্মৃতি ইরানি। বুধবার ফালাকাটা বিধানসভা কেন্দ্রের জটেশ্বরের গরুহাটি ময়দানে এক রাজনৈতিক সমাবেশে ভাষণ দিতে গিয়ে স্মৃতি ইরানি দাবী করেন যে, বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে সব থেকে বেশি গুরুত্ব পাবে মহিলাদের সার্বিক উন্নয়ন ও নারী সুরক্ষা। এছাড়াও বিজেপির নতুন সরকার ফালাকাটাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবী মেনে শহরে একটি আধুনিক মানের বাস টার্মিনাস গড়বে। বিধানসভা কেন্দ্রের প্রতিটি নদীর উপর পাকা সেতু নির্মাণেরও প্রতিশ্রুতি শোনা যায় স্মৃতির গলায়। স্মৃতি ইরানির ঐ জনসভায় উপস্থিত ছিলেন ফালাকাটার দলীয় প্রার্থী দীপক বর্মণসহ অন্যান্য দলীয় নেতৃত্বরা।