মোদির হাতে মাল্য, মুম্বাই বিমান বন্দর থেকেই আদালতে তোলা হবে কিং ফিসারের কিং কে

195
মোদির হাতে মাল্য, মুম্বাই বিমান বন্দর থেকেই আদালতে তোলা হবে কিং ফিসারের কিং কে 1
মোদির হাতে মাল্য, মুম্বাই বিমান বন্দর থেকেই আদালতে তোলা হবে কিং ফিসারের কিং কে 2

নিজস্ব সংবাদদাতা:অবশেষে মোদির হাতের মুঠোয় পলাতক চিটিংবাজ বিজয় মাল্য। করোনা লড়াইয়ের মধ্যেও স্বস্তি। আপাতত ডজন খানেক সুন্দরীর বদলে জনা পাঁচেক দুঁদে সিবিআই আধিকারিক ঘিরে রয়েছেন মাল্যকে। দীর্ঘ আইনি লড়াই শেষে লন্ডন থেকে ভারতে আনার প্রক্রিয়ায় সফল সিবিআই। বহু পোড়নের শেষে তাঁকে নিজেদের হেফাজতে পেয়েছে সিবিআই। ভারতে উড়িয়ে নিয়ে আসা হচ্ছে ঋণখেলাপির মামলায় অভিযুক্ত পলাতক ব্যবসায়ী বিজয় মাল্যকে। লন্ডন থেকে বিশেষ বিমানে তাকে ভারতে উড়িয়ে আনা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। তাকে নিয়ে আসছেন সিবিআই ও এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের আধিকারিকেরা।মোদির হাতে মাল্য, মুম্বাই বিমান বন্দর থেকেই আদালতে তোলা হবে কিং ফিসারের কিং কে 3 জানা গেছে মুম্বই বিমানবন্দরে তাকে নামানোর পর প্রথমে একটি মেডিকেল টিম তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করবে। যদি এদিন রাতের মধ্যেই মাল্য এসে পৌঁছন তাহলে তাকে সিবিআই হেফাজতে রাখা হবে। পরের দিনের বেলায় আদালতে পেশ করা হবে। আর যদি আনতে আনতে সকাল হয়ে যায় তাহলে সেখানে থেকেই তাকে মেডিকেল পরীক্ষার পর সরাসরি আদালতে নিয়ে যাওয়া হবে।

ব্রিটিনের আদালতকে ইতিমধ্যে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ভারতে উড়িয়ে আনার পরে বিজয় মাল্যকে আর্থার রোড জেলের একটি বিশেষ ব্যারাকে পূর্ণ নিরাপত্তার সঙ্গে রাখা হবে। এই আর্থার রোড জেলে বিখ্যাত সমস্ত সন্ত্রাসবাদী থেকে শুরু করে নানা ঘটনায় শীর্ষ অপরাধীরা দিন কাটিয়েছে। মুম্বই হামলার সাজাপ্রাপ্ত পাকিস্তানি জঙ্গি আজমল কাসভ এই জেলে ছিল। এছাড়াও আবু সালেম, ছোটা রাজন, মোস্তাফা দোসা, পিটার মুখার্জির মতো অনেকেই এই জেলে দিন কাটিয়েছে। ১৭ টি ব্যাঙ্কের ৯ হাজার কোটি টাকার ঋণ খেলাপির মামলায় অভিযুক্ত বিজয় মাল্য। গত ১৪ মে তাকে ব্রিটেনের আদালত ভারতের প্রত্যর্পণের নির্দেশ দেয়।

মোদির হাতে মাল্য, মুম্বাই বিমান বন্দর থেকেই আদালতে তোলা হবে কিং ফিসারের কিং কে 4

বিজয় মালিয়াকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার যে আবেদন ভারত সরকারের তরফে করা হয়েছিল, তার বিরুদ্ধে লন্ডন হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মাল্য। সেখানে হারের পর গত মাসের শুরুতে ব্রিটেনের সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন কিংফিশার উড়ান সংস্থার এককালীন কর্ণধার। তবে সেখানেও মাল্যর সেই আবেদন ধোপে টেকেনি।

এবার ভারতে বিজকে ফিরিয়ে আনার ব্যপারে সব সরকারি কাজকর্মও শেষ হয়েছে। এবার যেকোনও সময় কিংফিশার কর্ণধারকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারবে ভারত। এদিকে ঋণের ১০০ শতাংশই ভারত সরকারকে ফিরিয়ে দিতে চাইছেন বিজয় মাল্য। পরিবর্তে তাঁর বিরুদ্ধে চলা মামলা বন্ধ করা হোক। কয়েকদিন আগেই কেন্দ্রের কাছে এই আবেদনই করলেন ‘পলাতক’ বিজয় মাল্য। তবে সে আবেদনের বিচার করবে আদালত। আপাতত বিচার চলবে তাঁর। শেষ খবর পাওয়া অবধি এখন চূড়ান্ত প্রস্তুতি মুম্বাই বিমানবন্দরে।