Homeএখন খবররেকর্ড ছুঁতে চলেছে বুলবুল, ভয়ংকর বেগে ছুটে আসছে উপকুলে, গতিমুখ নিয়ে...

রেকর্ড ছুঁতে চলেছে বুলবুল, ভয়ংকর বেগে ছুটে আসছে উপকুলে, গতিমুখ নিয়ে ধন্দে আবহাওয়াবিদরা, ভাসতে পারে খড়গপুর মেদিনীপুর

Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: ২০১৮তে বঙ্গোপসাগরে মোট ঘূর্ণিঝড়ের সংখ্যা ছিল সাত। ২০১৯য়ে এখনও অবধি ৬টা ঘূর্ণিঝড় হয়ে গেছে।  এবার সপ্তম ঘূর্ণিঝড়ে রূপান্তরিত হওয়ার আগে বঙ্গোপসাগরে বাসা বেঁধেছে নিম্নচাপ। শীঘ্রই এটি ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিয়ে ‘বুলবুল’ নামে ধেয়ে আসবে বঙ্গোপসাগরের ওপর দিয়ে। আর সেটাই ছুঁয়ে যাবে ২০১৮র রেকর্ডকে। বছর শেষ হতে হাতে এখনও দুমাস। এই দুমাসে নতুন করে কোনও ঘূর্ণিঝড় তৈরি হলে রেকর্ড ভাঙবে গত বছরের এবং সেটার সম্ভবনাও রয়েছে।  শক্তি পাকিয়ে ধেয়ে আসছে সাইক্লোন বুলবুল। গত কয়েকদিন ধরে বঙ্গোপসাগরের উপর ঘনীভূত হচ্ছে এই সাইক্লোন। ঝড়ের অভিমুখ বাংলা ও ওড়িশা-অন্ধ্র উপকূলের দিকে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
শুক্রবার থেকে এই সাইক্লোনের জেরে ওড়িশা ও পশ্চিমবঙ্গের উপকূলে বৃষ্টি শুরু হবে বলে জানা গিয়েছে। এদিন দুপুরে ভয়ঙ্কর সাইক্লোনের আকার ধারণ করবে ‘বুলবুল।’ মৌসম ভবনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এদিন দুই রাজ্যেই ব্যাপক বৃষ্টি হবে। এরপর শনিবার পর্যন্ত এই ঝড় ক্রমশ উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম দিকে এগিয়ে যেতে থাকবে। তবে যেভাবে এই সাইক্লোন শক্তি পাকাচ্ছে তাতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বাড়বে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ইতিমধ্যেই  এই আশঙ্কা থেকে  শুক্রবার কলকাতা পুরসভায় জরুরি বৈঠক ডেকেছেন। এই ঝড় মোকাবিলায় কি প্রস্তুতি নেওয়া যেতে পারে, কীভাবেই তা সামাল দেওয়া যায় তা নিয়েই মূলত আলোচনা হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও আগাম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে পুর আধিকারিকদের সমস্ত ছুটি বাতিল করা হতে পারে বলে সূত্রে খবর। সেইসঙ্গে ঘূর্ণিঝড় ফেণীর সময় কলকাতা পুরসভার তরফে যে ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল এক্ষেত্রেও একই ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে বলে জানা গিয়েছে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
এখনও পর্যন্ত সাইক্লোন বুলবুলের গতিপথ কোন দিকে হবে তা নির্দিষ্ট করে বলতে পারছেন না আবহাওয়াবিদরা। তবে যেভাবে সাইক্লোনের গতিপথ এগোচ্ছে তাতে বাংলার তিন জেলাতে বেশ প্রভাব পড়বে বলেই আশঙ্কা। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, শনিবার থেকে অন্তত সোমবার পর্যন্ত দুই ২৪ পরগনা ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় বিক্ষিপ্ত ভাবে ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
শুক্রবার থেকে বাংলা, ওডিশার উপকূলে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৬০ কিমি বেগে দমকা বাতাস বইতে পারে। গভীর সমুদ্র আরও উত্তাল থাকবে। আর সেই কারণে মৎস্যজীবীদের গভীর সমুদ্রে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
যদিও ঝড়ের এই অভিমুখ বদলেও যেতে পারে। গতবারের ফনির মত দিঘার আরও পুর্বে বাংলার দিকে বাঁক নেয় তবে ঝাড়গ্রামের গোপীবল্লভপুরের অপর দিয়ে তা খড়গপুর কেশপুর হয়ে চলে যেতে পারে হুগলি নদিয়া হয়ে বাংলাদেশের দিকেও। সেক্ষেত্রে মহানগর বেঁচে গেলেও ধাক্কা খাবে খড়গপুর মেদিনীপুর। 

Advertisement

Advertisement

RELATED ARTICLES

Most Popular