কালবৈশাখীর তীব্র দাপটে লণ্ডভণ্ড খড়গপুর মেদিনীপুর সহ দক্ষিনবঙ্গ, দশ মিনিটেই দশ অবস্থা বোরো চাষের

313
Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: মরশুমের প্রথম কালবৈশাখীর দাপট আজ দেখল দক্ষিনবঙ্গ আর তাতেই থরহর কম্পিত হল খড়গপুর মেদিনীপুর সহ বিস্তীর্ণ এলাকা। লকডাউনের জেরে ঘরে আটকে ঝড়- ঠান্ডা হাওয়ায় স্বস্তিও পেল শহর-সহ রাজ্যের মানুষ। ঝোড়ো বাতাসের সঙ্গে বিদ্যুতের ঝলকানি দেখে তাক লেগে যাওয়ার মত পরিস্থিতি রাজ্যের। তবে আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর দক্ষিণবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায় ঝড়-বৃষ্টি সম্ভাবনা রয়েছে।

Advertisement

সকাল থেকেই মুখবার ছিল আকাশের। বেলা বাড়তেই আকাশ কিছুটা পরিষ্কার হলেও পরে সারাদিন মেঘলা হয়ে থাকে। ফলে সারাদিন ধরে একটা ভ্যাপসা গরম অনুভূত হয়। আকাশ মেঘলা থাকায় বাতাসে ছিল আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি। শনিবার মেদিনীপুর সহ সংলগ্ন এলাকায় তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহাওয়া উদ্যানের দেওয়া পরিসংখ্যান বলেছেন মেদিনীপুর সংলগ্ন এলাকায় শুক্রবার বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৬.২৯ ও সর্বনিম্ন ২৬.৫৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ ৫৩.৭৫ থেকে ৯৫.৩ শতাংশ। অর্থাৎ সব মিলিয়ে পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছিল। আর কদিন ধরেই দুপুর তিনটের পর থেকে মেঘ জমেই কেটে যাচ্ছিল সন্ধ্যের মুখেই। তবে বাঁধ ভাঙল শনিবার।

Advertisement
Advertisement

এদিন বিকেল হতেই প্রথমে হালকা ঠান্ডা হাওয়া পরে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ তীব্র ঝোড়ো হাওয়া বইতে শুরু করে। আর তার সঙ্গেই শুরু হয় বৃষ্টির দাপট। মাত্র মিনিট দশেক স্থায়ী হওয়া ওই মুহুর্ত টুকু কাঁপিয়ে দেয় মানু্ষের মন। বিভিন্ন জায়গায় গাছ ভেঙে পড়ে, উড়ে যায় টিনের চাল। দফারফা হয়ে যায় মাঠে থাকা প্রায় পেকে আসা পুষ্ট ধানের।এদিনের এই ঝড় ও বৃষ্টির খবর এসেছে দুই ২৪ পরগনা, দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রামের পাশাপাশি হাওড়া, হুগলি থেকেও।

ক্যালেন্ডারের নিয়ম মেনে রাজ্যে বৈশাখ মাস শুরু হলেও তেমন বৃষ্টির স্বাদ পায়নি রাজ্যবাসী। বাতাসে তাপমাত্রার পারদ বাড়লেও পাল্লা দিয়ে ধেয়ে আসেনি কালবৈশাখী। তবে শনিবারের ঝোড়ো হাওয়া স্বস্তি দিয়েছে শহরবাসীকে । তবে আশংকায় গ্রাম। কারন মাঠের পাকা ধান লণ্ডভণ্ড হয়েছে আর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে সবজির। হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, উত্তরবঙ্গ ও সংলগ্ন বাংলাদেশে একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছে। এই ঘূর্ণাবর্ত থেকে নিম্নচাপ অক্ষরেখা উত্তর প্রদেশ পর্যন্ত বিস্তৃত বিহারের উপর দিয়ে। এর জেরেই সোমবার পর্যন্ত ঝড় বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে উত্তরবঙ্গে। মুর্শিদাবাদ নদিয়া বীরভূম-সহ দক্ষিণবঙ্গে ও বিক্ষিপ্ত ঝড়-বৃষ্টি হতে পারে। তবে, দক্ষিণবঙ্গে ঝড়-বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে মঙ্গলবার থেকে।