হাওয়া অফিসের নিক্তি মেপেই বৃষ্টির স্বস্তিতে খড়গপুর-মেদিনীপুর! কালবৈশাখী ছুঁয়ে গেল গোপীবল্লভপুর ঝাড়গ্রামও

575
হাওয়া অফিসের নিক্তি মেপেই বৃষ্টির স্বস্তিতে খড়গপুর-মেদিনীপুর! কালবৈশাখী ছুঁয়ে গেল গোপীবল্লভপুর ঝাড়গ্রামও 1

হাওয়া অফিসের নিক্তি মেপেই বৃষ্টির স্বস্তিতে খড়গপুর-মেদিনীপুর! কালবৈশাখী ছুঁয়ে গেল গোপীবল্লভপুর ঝাড়গ্রামও 2নিজস্ব সংবাদদাতা: আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাষ মেলেনা বলে যাঁরা অনেক সময়ই অনুযোগ করে থাকেন তাঁদের সেই অনুযোগ অবশ্য খাটলনা বৃহস্পতিবার। এদিন সন্ধ্যা বেলায় বৃষ্টি এবং হওয়ার দোলে স্বস্তি এল খড়গপুর এবং মেদিনীপুর দুই শহরেই। বৃহস্পতিবার কালবৈশাখী স্বস্তি দিয়ে গিয়েছে গোপীবল্লভপুর ও ঝাড়গ্রামেও। গত প্রায় ১ সপ্তাহ ধরে চলে আসা মারাত্মক দাবদাহ থেকে কিছুটা হলেও মুক্তির আশ্বাস মিলেছে এদিনের আবহাওয়া থেকে।
বুধবার থেকেই আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছিল যে ২৪ঘন্টার মধ্যেই দক্ষিনবঙ্গের জেলাগুলিতে ঝাঁপিয়ে পড়বে কালবৈশাখী। হবে ঝড়বৃষ্টি বজ্রপাত। উত্তরেও কিছুটা কাল বৈশাখীর দাপটের কথা জানানো হয়েছিল। বৃহস্পতিবার বেলা ৩ টা নাগাদ ফের আলিপুর সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে পূর্বাভাষ দিয়ে জানিয়ে দেয় প্রবল জোলো হওয়া ছুটে আসছে দক্ষিণবঙ্গের জেলা গুলিতে সঙ্গে রয়েছে বর্জ্রগর্ভ মেঘ। সেই মতই সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে ৭টার মধ্যে হালকা হওয়ার দাপটের সাথে বৃষ্টি হয়েছে খড়গপুর ও মেদিনীপুর শহরে। বৃষ্টি হয়েছে গোপীবল্লভপুর ও ঝাড়গ্রামেও।

   দক্ষিণবঙ্গ প্রসঙ্গে হাওয়া অফিস পরিষ্কার ভাবেই জানিয়েছিল যে কালবৈশাখী   আঘাত হানতে চলেছে  পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে। কালবৈশাখীর সম্ভাব্য মানচিত্রে যুক্ত হয়েছিল বীরভূম, মুর্শিদাবাদও। মোটামুটি সেই নিক্তি মেপেই যেন স্বস্তির বৃষ্টি হয়ে গেল এই জেলাগুলিতে। এদিন ঝাড়গ্রাম ও গোপীবল্লভপুরে বৃষ্টি হয়েছে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা নাগাদ। অন্যদিকে খড়গপুর মেদিনীপুর শহরে বৃষ্টি শুরু হয় পৌনে ৭টা নাগাদ। যদিও সন্ধ্যার এই বৃষ্টি কোথাও খুব বেশি স্থায়ী হয়নি। হালকা দোলনে অথচ বড় ফোঁটার বৃষ্টি স্থায়ী হয়েছে খুব বেশি হলে ১৫ মিনিট তবে তাতেই অনেকটাই স্বস্তি মিলেছে সংশ্লিষ্ট এলাকায়।

হাওয়া অফিসের নিক্তি মেপেই বৃষ্টির স্বস্তিতে খড়গপুর-মেদিনীপুর! কালবৈশাখী ছুঁয়ে গেল গোপীবল্লভপুর ঝাড়গ্রামও 3

তবে ঝড় বা বৃষ্টির তেমন কোনও প্রতিফলন দেখা যায়নি বেলদা, ডেবরা কিংবা সবং এলাকায়। অনকেটাই নিরুত্তাপ ছিল গ্রামীন খড়গপুর, পিংলাও। যদিও কালো মেঘের ঝাঁক এদিকেও আকাশ ঢেকে দিয়েছে, বাতাসও বইছে বেশ কিছুটা। আশা আছে হয়ত রাতের দিকে বৃষ্টি হতেও পারে। যদিও দিন ভর মেঘলা আকাশ দিনের তাপমাত্রা বেশকিছুটা কম করে আবহাওয়া কিছুটা ঠান্ডা হয়েছে। এদিকে বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহাওয়া উদ্যানের আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের রিপোর্ট অনুযায়ী মেদিনীপুর ও সংলগ্ন এলাকায় বৃহস্পতিবার দিনের  সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫.৪১ ডিগ্রি এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২২.৬৫ ডিগ্রি সেন্ট্রিগ্রেড ছিল বলেই জানা গিয়েছে। বাতাসে গড় আর্দ্রতার পরিমান ৭৭.৭৭% এবং বৃষ্টি হয়েছে ১.৭৮ মিলিমিটার।

তবে আগামী কয়েকঘন্টা বড়সড় ঝড়ের সম্ভবনা নেই বলে জানানো হয়েছে। আবহাওয়া  দপ্তর বলেছে , পূর্ব উত্তর প্রদেশ এবং সংলগ্ন বিহারের ওপরে একটি ঘূর্ণাবর্ত অবস্থান করছে। যা সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে ১.৫ কিমি ওপর পর্যন্ত বিস্তৃত আছে। তবে ঝাড়খণ্ড এবং সংলগ্ন উত্তর ছত্তিশগড়ের ওপরে থাকা ঘূর্ণাবর্তটি অনেকটাই শক্তিহীন হয়ে পড়েছে।