বিধিনিষেধ ভেঙে ১০০ জন আমন্ত্রিতদের নিয়ে বিয়ের অনুষ্ঠান, আক্রান্ত ৯৫ জন, মৃত খোদ বর

92

ওয়েব ডেস্ক : করোনা মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্বই এক মাত্র পথ, একথা বারংবার বলছে চিকিৎসকরা। এই পরিস্থিতিতে অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৫০ জনের বেশি উপস্থিত থাকা যাবে না এমনটাই নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু আদপে সেসব কথা শুনছে না কেউই। সরকারি নির্দেশিকাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়েই বিপুল সংখ্যক আমন্ত্রিতদের নিয়েই চলছে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে। কয়েকদিন আগে একই ঘটনা ঘটেছিল রাজস্থানে। এবার নির্দেশিকা অমান্য করে পাটনার একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে পায় ১০০ জনকে আমন্ত্রণ করায় তাদের মধ্যে ৯৫ জনের শরীরেই মিলেছে করোনা সংক্রমণ। মৃত্যু হয়েছে খোদ বরের।

আরও পড়ুন -  কেন্দ্রের নয়া নির্দেশিকা, রাজ্যের ঘোষিত সেপ্টেম্বরের লকডাউন বাতিল হতে পারে

জানা গিয়েছে, পাটনা থেকে ৫০ কিমি দূরে পালিগঞ্জের একটি গ্রামে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করে ধুমধাম করে বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন প্রায় ১০০ জন। ভালো ভাবেই মেটে বিয়ের অনুষ্ঠান। কিন্তু বিয়ের মাত্র দুদিন পরই করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারালেন বর। পেশায় ইঞ্জিনিয়ার বর চাকরিসূত্রে গুরুগ্রামের বাসিন্দা। জানা গিয়েছে, বিয়ের কয়েকদিন আগে থেকেই তার সামন্য জ্বর কাশি ছিল। কিন্তু অনুষ্ঠানের কারণে এই বিষয়টি পাত্তা দেয়নি পরিবার৷ এমনকি যুবকের মৃত্যুর পর করোনা পরীক্ষা না করেই তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয় বলেউ বিস্ফোরক অভিযোগ করেন মৃতের প্রতিবেশিরা।

এদিকে বিয়েতে এত হৈ হুল্লোড়ের পর মাত্র দুদিনের মাথায় আচমকা ওই যুবকের আকস্মিক মৃত্যুর খবর পেয়ে স্তম্ভিত হয়ে যান আত্মীয় পরিজনরা। এরপর যুবক ও তাঁর স্ত্রীয়ের পরিবারের ঘনিষ্ঠ আত্মীয়দের করোনা পরীক্ষার নির্দেশ দেয় জেলা প্রশাসন। নমুনা পরীক্ষার পর যুবকের আত্মীয়দের মধ্যে ১৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। কিন্তু কারো শরীরে উপসর্গ না থাকায় চিন্তায় পড়ে যান প্রশাসন। এরপর বিয়েবাড়িতে আমন্ত্রিত সকলেরই খোঁজ শুরু করে তাদেরও নমুনা পরীক্ষা করা হয়। সোমবার তাদের রিপোর্ট এলে দেখা যায় আরও ৮০ জনের শরীরে এই ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছে। এই নিয়ে মোট ৯৫ জনের শরীরে এই মারণ ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে৷

আরও পড়ুন -  ভারতের বাজারেও সহজলভ্য করোনা ভাইরাস প্রতিরোধকারী এন-৯৫ মাস্ক, জানালো কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক

তবে যুবকের আচমকা মৃত্যুতে স্থানীয়দের মনেও আশঙ্কা বাসা বাধছিল। কীভাবে জলজ্যান্ত ছেলেটার মৃত্যু হল সেই প্রশ্ন স্থানীয়দের মনে জাগলেও যেহেতু য়ার করোনা পরীক্ষা করানো হয়নি তাই তারা এবিষয়ে মুখ খুলতেও পারছিলেন না। এমনকি মৃত্যুর পর প্রশাসনকে খবর পর্যন্ত দেয়নি পরিবার। একেই দেশের সংকটের পরিস্থিতি তারওপর দেশের নাগরিকদের এমন দায়িত্বজ্ঞানহীনের অবাক গোটা দেধ তথা প্রশাসন।

বিধিনিষেধ ভেঙে ১০০ জন আমন্ত্রিতদের নিয়ে বিয়ের অনুষ্ঠান, আক্রান্ত ৯৫ জন, মৃত খোদ বর 1