পূর্ব মেদিনীপুরে কী জলদস্যুদের অভিযান? গেঁওখালিতে সন্দেহভাজন ট্রলার,আটক ৬

245

ভীষ্মদেব দাশ, পূর্ব মেদিনীপুরঃ পূর্ব মেদিনীপুরের গেঁওখালির কাছে হুগলি ও দামোদর নদীর সংযোগস্থলে সন্দেহজনক ট্রলারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। গতকাল রাতে গেঁওখালির কাছে সন্দেহজনকভাবে একটি ট্রলার ঘোরাফেরা করায় হলদিয়া উপকূলরক্ষী বাহিনীর নজরে আসে। দ্রুত উপকূল রক্ষী বাহিনী ট্রলারটিকে ধাওয়া করে। ট্রলারে থাকা ব্যক্তিরা বুঝতে পেরে গেঁওখালির কাছে নাটশাল এলাকায় একটি জঙ্গলের পাশে ট্রলারটি রেখে দিয়ে চম্পট দেয়। উপকূল রক্ষীবাহিনী ৬জনকে আটক করে।

আরও পড়ুন -  নমুনা না দিয়েই সবংয়ের সচিবের রিপোর্ট নেগেটিভ! NICED নিয়ে নাজেহাল জেলা, ফের মেদিনীপুর ভাইরোলজি ল্যাবেই শুরু পরীক্ষা

পূর্ব মেদিনীপুরে কী জলদস্যুদের অভিযান? গেঁওখালিতে সন্দেহভাজন ট্রলার,আটক ৬ 1
কোস্টগার্ড গতকাল অর্থাৎ রবিবার রাতে ট্রলারটিকে আটক করে। আজ সোমবার সকাল থেকে কোস্টগার্ড ও পুলিশের ৬০জনের একটি দল তল্লাশি চালাচ্ছে। ট্রলারটি কোথা থেকে এলো? কারা নিয়ে এসেছে? কেন এখানে এসে ঘোরা-ফেরা করছিল এসব বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে হলদিয়া উপকূল রক্ষীবাহিনীর বিশেষ দল। ট্রলারটির রেজিস্ট্রেশন নাম্বার এরাজ্যের হলেও অনেকে বাংলাদেশী ট্রলার বলে আশঙ্কা করছেন। তাতে আতঙ্ক ছড়িয়েছে স্থানীয় গেঁওখালি-হলদিয়া এলাকায়। স্থানীয় বাসিন্দা আলি আসগর বলেন, গত শুক্রবার থেকে ট্রলারটি ঘোরাফেরা করছিল। ট্রলারে প্রায় ১০-১২জন লোক ছিল। জালে মাছ ওঠে কিনা জিজ্ঞেস করেছিল। সোমবার সকালে উঠে দেখি কোস্টগার্ড ও পুলিশ তদন্ত করছে।

৬জনকে আটক করেছে। অনেকে আবার মনে করছেন বাংলাদেশের জলদস্যুদের সঙ্গে মিলিত ভাবে এ বাংলার কিছু সমাজ বিরোধি মিলিত ভাবে এখানে এসেছিল কোনও অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে। আটক ৬ সন্দেহভাজনকে বাংলাদেশি সন্দেহ করলেও তাদের থেকে ভারতীয় আধার কার্ড পাওয়া গিয়েছে। পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পুলিশ সুপার সুনীল কুমার যাদব বলেন, উপকূল রক্ষী বাহিনী ৬জনকে আটক করেছে। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তদন্তের পরে সঠিক কারন, উদ্দেশ্য পরিষ্কার হবে।

পূর্ব মেদিনীপুরে কী জলদস্যুদের অভিযান? গেঁওখালিতে সন্দেহভাজন ট্রলার,আটক ৬ 2