ডায়বেটিস হোক বা ইনসমোনিয়া; কামাল দেখাবে এক টুকরো পেঁয়াজ

265
ডায়বেটিস হোক বা ইনসমোনিয়া; কামাল দেখাবে এক টুকরো পেঁয়াজ 1
ডায়বেটিস হোক বা ইনসমোনিয়া; কামাল দেখাবে এক টুকরো পেঁয়াজ 2

নিউজ ডেস্ক: পেঁয়াজ দিয়ে রান্না করা যে কোনও সব্জি বা ডাল রান্নার স্বাদ বাড়িয়ে দেয় দ্বিগুন। তবে শুধু রান্নার স্বাদ বৃদ্ধিই নয়, পেঁয়াজের রয়েছে আরও হরেক রকম গুণ। একাধিক গবেষণায় এ কথা প্রমাণিত হয়েছে- পেঁয়াজে উপস্থিত বেশ কিছু উপকারী উপাদান একাধিক রোগের চিকিৎসায় বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। যেমন:-

কাশির প্রকোপ কমায়
একটা পেঁয়াজকে কেটে নিয়ে তার রস সংগ্রহ করে নিন। তারপর তাতে কয়েক ড্রপ মধু মিশিয়ে এই মিশ্রণ দিনে কম করে দুইবার পান করলেই কাশি কমে যেতে শুরু করবে।

ডায়বেটিস হোক বা ইনসমোনিয়া; কামাল দেখাবে এক টুকরো পেঁয়াজ 3

জ্বরের প্রকোপ কমায়
ঘুমাতে যাওয়ার আগে একটা পেঁয়াজ কেটে নিন। তার সঙ্গে অল্প করে আলু এবং ২টা রসুনের কোয়া মিশিয়ে মোজার মধ্যে রেখে সেই মোজা পরে ঘুমাতে যান। এমনটা কয়েকদিন করলেই দেখবেন সুস্থ হতে শুরু করেছেন।

মুখের গন্ধ দূর করে
কাঁচা পেঁয়াজ খেলে মুখ গহ্বরের উপস্থিত ব্যাকটেরিয়াগুলো মরতে শুরু করে। ফলে মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়। সেই সঙ্গে মাড়ির নানান রোগ হওয়ার আশঙ্কাও কমে।

কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়
শরীরে ভালো কোলেস্টেরল বা এইচডিএল-এর মাত্রা বাড়িয়ে একদিকে যেমন শরীরকে চাঙ্গা রাখে, তেমনি অন্যদিকে খারাপ কোলেস্টরলের পরিমাণ কমিয়ে হার্টের কর্মক্ষমতা বাড়ায় পেঁয়াজ।

ডায়াবেটিসের দূরে রাখে
অবাক হলে! তবে অবাক হলেও সত্যি ২১ শতকের সব থেকে ভয়ঙ্কর এই রোগকে দমিয়ে রাখতে পেঁয়াজের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। এতে উপস্থিত বেশ কিছু উপদান রক্তে শর্করার মাত্রাকে বাড়তে দেয় না। সেই সঙ্গে ইনসুলিনের ঘাটতি যাতে দেখা না দেয়, সেদিকেও খেয়াল রাখে। ফলে ডায়াবেটিসের প্রকোপ বৃদ্ধির সুযোগই থাকে না।

ইনসোমনিয়া মতো রোগের প্রকোপ কমায়
আপনি কি রাত জাগা পাখি? চাইলেও চোখের পাতা এক করতে পারেন না? তাহলে তো প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় পেঁয়াজের থাকা চাই-ই চাই। কারণ ইনসোমনিয়ার মতো রোগের উপশমে এটি দারুণ কাজ দেয়।

আঁচিল দূর করে সহায়ক
গোল করে পেঁয়াজ কেটে আঁচিলের উপর রেখে একটা কাপড় দিয়ে বেঁধে দিন। যাতে সেটি পরে না যায়। প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে এমনটা করলে অল্প দিনেই দেখবেন আঁচিল খসে পড়ে গেছে।

স্মৃতি শক্তির উন্নতি ঘটায়
সম্প্রতি প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্র অনুসারে নিয়মিত কাঁচা পেঁয়াজ খেলে ব্রেন পাওয়ার বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। ফলে স্মৃতিশক্তির যেমন উন্নতি ঘটে, তেমনি নার্ভাস সিস্টেমের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে একাধিক ব্রেন ডিজিজ হওয়ার আশঙ্কাও কমে যায়।

ক্যান্সার দূরে রাখে
ব্রেন, কোলোন এবং ঘাড়ের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কমিয়ে দেয় প্রতিদিন এক টুকরো করে পেঁয়াজ খাওয়া। কারণ এতে উপস্থিত বেশকিছু উপাদান শরীরে ক্যান্সার কোষের জন্ম হতে দেয় না। ফলে এমন ধরনের মারণ রোগ ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না মানুষের।