মানত রক্ষা করতে চাকরি পেয়েই নিজেকে ঈশ্বরের কাছে বলি দিলেন যুবক

702
মানত রক্ষা করতে চাকরি পেয়েই নিজেকে ঈশ্বরের কাছে বলি দিলেন যুবক 1

নিউজ ডেস্ক: ঈশ্বরের কাছে মানত করেছিলেন চাকরি পেলেই নিজেকে তাঁর হাতেই তুলে দেবেন। নিজের কথা অক্ষরে অক্ষরে রাখলেন তামিলনাড়ুর যুবক। হাতে নিয়োগপত্র আসার পরই. নিজেকে ঈশ্বরের কাছে সমর্পণ করে দিলেন সদ্য চাকরি পাওয়া সেই যুবক। তামিলনাডুর কন্যাকুমারী জেলার বাসিন্দা সি নবীনের বয়স ৩২। তিনি ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক। তাও মিলছিল না চাকরি। গত কয়েক বছর ধরে বেকারত্বের জ্বালা কুঁড়ে কুঁড়ে খাচ্ছিল তাঁকে। অবশেষে অন্ধকার কেটে গিয়ে দেখা দিয়েছিল সোনালি রোদ। মুম্বইয়ের এক ব্যাংকে অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার হিসেবে চাকরি পান নবীন। কিন্তু প্রত্যাশিত সুখের সন্ধান পেয়েও নবীনের জীবনে দুঃখের কালো অন্ধকারে ঢেকে যায়।

আসলে বেকার থাকতে থাকতে চাকরি পাওয়াটাই তাঁর কাছে হয়ে উঠেছিল জীবনের একমাত্র কাম্য, চরমতম প্রার্থনা। ঈশ্বরের কাছে তাঁর প্রতিজ্ঞা ছিল, চাকরি পেলে এই জীবন তিনি তাঁকেই উৎসর্গ করবেন। অতিমারীর ধাক্কায় বহু মানুষ গত কয়েক মাসে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। এই পরিস্থিতিতে বহু প্রতীক্ষিত চাকরি পেয়েও শেষ পর্যন্ত আত্মহননের পথই বেছে নেন নবীন।

মানত রক্ষা করতে চাকরি পেয়েই নিজেকে ঈশ্বরের কাছে বলি দিলেন যুবক 2

কয়েক সপ্তাহ চাকরি করার পর বৃহস্পতিবার তিনি আকাশ পথে তিরুঅনন্তপুরম পৌঁছন। তারপর মার্থান্দমে গিয়ে এক বন্ধুর সঙ্গে দেখা করে বাসে চড়ে যান নাগেরকয়েল। সেখান থেকে রাজাক্কমঙ্গলম ব্লকের পুথেরি গ্রামে গিয়ে চলন্ত ট্রেনের সামনে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেন।শুক্রবার তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে রেল পুল‌িশ। দেহটি ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। পাওয়া গিয়েছে তাঁর সুইসাইড নোট। পকেটে রাখা কাগজে নবীন লিখে গিয়েছেন, ‘‘আমাকে যিনি চাকরি দিয়েছেন, সেই ঈশ্বরের কাছে চললাম।“

দীর্ঘ সময় ধরে চাকরি না থাকার যন্ত্রণার পর মিলেছিল এই ব্যাংকের চাকরি। কিন্তু তবুও চলন্ত ট্রেনের সাম‌নে লাফ দিয়ে নবীন নিজের জীবন শেষ করে দিলেন, শুধুমাত্র ঈশ্বরকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রাখতে! সুইসাইড নোটে লিখে গেলেন, ঈশ্বরের কাছে জীবন ‘উৎসর্গ’ করার কথা।