মা কালীকে সন্তুষ্ট করে দেশকে করোনা মুক্ত করতে নিজের জিভ কেটে জীবন বিপন্ন যুবকের

293
মা কালীকে সন্তুষ্ট করে দেশকে করোনা মুক্ত করতে নিজের জিভ কেটে জীবন বিপন্ন যুবকের 1

নিজস্ব সংবাদদাতা : করোনা মুক্ত করতে গোমূত্র পার্টি করতে দেখেছে দেশ। শুনেছে বাবা রামদেবের দেশীয় প্রক্রিয়ায় কোনও এক ব্যাক্তিকে করোনা মুক্ত করার ভাইরাল ভিডিও আর এবার যা ঘটল তা মারাত্মক। দেশকে করোনা মুক্ত করতে নিজের জিভ কেটে কালী’র ধামে উৎসর্গ করলেন মধ্যপ্রদেশের এক যুবক। তাঁর ঘনিষ্ঠদের দাবি, বিবেক শর্মা নামের ওই শ্রমিক মনে করেন, মা কালী অসন্তুষ্ট তাই দেশে করোনার বাড়বাড়ন্ত, কালীর সন্তুষ্টি কামনায় এমন কাণ্ড ঘটিয়ে মারাত্মক বিপদের মুখে ওই যুবক।

সূত্রের খবর, গুজরাতের নাদেশ্বরী গ্রামে কাজ করতে গত দু’মাস আগে মধ্যপ্রদেশের মোরেনা জেলা থেকে এসেছিলেন বিবেক শর্মা নামে ওই যুবক। স্থাপত্যের কাজের জন্য সুইগামের ভবানী মাতা মন্দিরে কাজ করছিলেন বিবেক। তাঁর সঙ্গেই কাজ করছেন আরও আট জন। তাঁদের মধ্যেই ছিলেন বিবেকের ভাই শিবম। বিবেকের সহকর্মী ব্রিজেশ জানিয়েছেন, বিবেক মা কালীর ভক্ত। প্রায় দিনই মা কালীর নাম করে চিৎকার করত সে। পাশাপাশি, লক ডাউনের মধ্যে বাড়ি ফিরতে না পাড়ায় উতলা হয়ে উঠেছিলেন।

মা কালীকে সন্তুষ্ট করে দেশকে করোনা মুক্ত করতে নিজের জিভ কেটে জীবন বিপন্ন যুবকের 2

ব্রিজেশ জানান, “শনিবার বাজার যাচ্ছে বলে বেরিয়ে যায়। অনেক সময় পেরিয়ে যাওয়ার পর যখন ও ফিরছে না দেখলাম, তখন শিবমকে ফোন করতে বললাম। তখনই অন্য একজন ফোন ধরে বিবেকের জিভ কেটে ফেলার কথা জানান।” এরপরই নাদেশ্বরী মন্দিরে বিবেকের ভাই-সহ অন্যান্য সহকর্মীরা গিয়ে দেখেন, অচৈতন্য অবস্থায় তিনি হাতে জিভটি নিয়ে বসে রয়েছেন।

মন্দির থেকে বিবেককে গুরুতর আহত অবস্থায় থারাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই বর্তমানে চিকিৎসাধীন বিবেক। তদন্ত শুরু হয়েছে, তবে ঠিক কি কারণে সে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে বিবেক সুস্থ হওয়ার পরই জানা যাবে বলে জানিয়েছে সুইগামের পুলিশ সাব-ইনস্পেক্টর এইচডি পারমার। যদিও প্রানে বেঁচে গেলেও মুখে আর কোনও দিনই মা কালীর নাম ওই যুবক নিতে পারবেন না বলেই চিকিৎসকরা মনে করছেন।